Shadow

রামগতিতে স্কুল হেলথ কার্ড ও হেলথ স্ক্রিনিং কার্যক্রমের উদ্বোধন। 

রামগতি (লক্ষীপুর) প্রতিনিধি : জনগণের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্য সেবা প্রতিপাদ্যকে
সামনের রেখে লক্ষীপুরের রামগতিতে জেলার সকল প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সকল
শিক্ষার্থীদের জন্য স্কুল হেলথ কার্ড ও হেলথ স্ক্রিনিং কার্যক্রমের উদ্বোধন করা
হয়েছে।
সোমবার (১১ অক্টোবর) সকালে জেলা প্রশাসনের উদ্যেগে ও উপজেলা প্রশাসনের
আয়োজনে এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের এবং ২ নং চর বাদাম
ইউনিয়নের সহযোগীতায় পশ্চিম চর সীতা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় হল রুমে
মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে এসডিজি-৩ “ সকল বয়সী সকল মানুষের জন্য সুস্বাস্থ্য ও
কল্যাণ নিশ্চিকরনে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।
জেলা প্রশাসক মো: আনোয়ার হোছাইন আকন্দ এর উদ্ভাবনী পরিকল্পনায় ও
নির্দেশনায় এবং সিভিল সার্জন ল²ীপুর, উপ পরিচালক পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ,
জেলার সকল উপজেলার নির্বাহী অফিসারগণ, জেলা শিক্ষা অফিসার, জেলা প্রাথমিক
শিক্ষা অফিসারের সহযোগীতায় বাংলাদেশে এই প্রথম ল²ীপুর জেলার সকল প্রাথমিক ও
মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীদের জন্য স্কুল হেলথ্ কার্ড ও হেলথ্ স্ক্রিনিং
কার্যক্রমের মত সাহসী পদক্ষেপটি গ্রহন করা হয়।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ আবুল
হাসনাত খাঁন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো:
আনোয়ার হোছাইন আকন্দ, বিশেষ অতিথি ছিলেন সিভিল সার্জন ডা: মো:
আবদুল গফফার, অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ
পরিচারক নূর এ আলম, অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মেহের নিগার,
পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ পরিচালক ডা: আশফাকুর রহমান মামুন, পৌর মেয়র এম
মেজবাহ উদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান রাহিদ হোসেন, উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত
সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওয়াহেদ মুরাদ, থানা ইন্সপেক্টর তদন্ত মো: মমিনুল হক ,চর
বাদাম ইউপি চেয়ারম্যান সাখাওয়াত হোসেন জসিম, বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যান,
সরকারী কর্মকর্তা, সরকারী কলেজের শিক্ষক, সাংবাদিকসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক মুহাম্মদ নিজাম উদ্দিন।
উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, জেলার সকল প্রাথমিক ও মাধ্যমিক
বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীদের জন্য স্কুল হেলথ কার্ড ও হেলথ স্ক্রিনিং কার্যক্রম গ্রহণ
করা হয়েছে। প্রতিটি শিক্ষার্থীকে একটি করে হেলথ কার্ড প্রদান করা হবে।
কার্ডটিতে ফাষ্টফুড জাঙ্ক ফুড বর্জন করি, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি, পরিচ্ছন্নতা
সহ ১১ টি উপদেশ/পরামর্শ রয়েছে। রয়েছে ১০ টি স্কোরিং এছাড়া উচ্চতা ওজন,পুষ্টিগত অবস্থান, বর্তমান শারিরীক অবস্থা, চর্মরোগ, শ^াসকষ্ট, ডায়ারিয়া, জন্ডিষ,
ইনফেকশন, ইপিআই/টিটি, দৃষ্টি পরীক্ষা, রক্তশূণ্যতাসহ ১১ টি বিষয়ে স্কিলিং করে
প্রতিনিয়িত আপডেট রিপোর্ট লিখা হবে। এ কার্ডটি ২০৩০ সাল পর্যন্ত ব্যবহার
করা যাবে।
এর প্রায় ২১ দিন আগে জেলা প্রশাসক তার ব্যক্তিগত উদ্ভাবনী চিন্তা প্রসূত
পদক্ষেপ চর বাদাম ইউনিয়নে জেলা ল²ীপুর জেলার অনলাইন এম্বুলেন্স সার্ভিস “ স্বপ্নযাত্রা ” উদ্বোধন করেন। যা পর্যায়ক্রমে পুরো জেলার সকল ইউনিয়ন একটি করে
এম্বুলেন্স ক্রয় করবে।