Shadow

সাদুল্লাপুর উপজেলা হাসপাতালে ইসিজি ,আলট্রাসনোগ্রাম, এক্স-রে মেশিন থাকার পরও কার্যক্রম বন্ধ রোগীদের দুর্ভোগ

সাদুল্লাপুর (গাইবান্ধা) উপজেলা সংবাদদাতা ঃ গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলা হাসপাতালের কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারনে আলট্রাসনোগ্রাম, এক্স-রে, ইসিজি মেশিন থাকার পরও রোগীদের ভোগান্তী শিকারে পরিনত হয়েছে। জানা গেছে, উপজেলা ১১টি ইউনিয়নের আনুমানিক ২ লক্ষাধিক মানুষের সেবার একমাত্র প্রতিষ্ঠান সাদুল্লাপুর উপজেলা হাসপাতাল। নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত উপজেলাটি । সাধারণ রোগীরা স্বাস্থ্যসেবা নেয়ার জন্য হাসপাতালে র্ভতি হলে কর্তব্যরত ডাক্তাররা রোগীদের রোগ নিরাময়ের জন্য নানা পরীক্ষা নিরীক্ষা করার জন্য এক গাদা ব্যবস্থাপত্র হাতে তুলে দেন। অনুসন্ধানে দেখা যায়, সাদুল্লাপুর হাসপাতালের কর্মরত এম.টি (ল্যাব) এ টি এম নুর আলম মিয়ার নিজস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নুসরাত ডায়গনষ্টিক সেন্টার। দীর্ঘ দিন ধরে একই স্থানে চাকুরীর সুবাদে কর্র্তৃপক্ষকে চাপের সৃষ্টি করে  সরকারী ভাবে আলট্রাসনোগ্রাম করা বন্ধ করে রেখেছেন। যাবতীয় মেশিন পত্র হাসপাতালে চালু থাকার পরেও সকল পরীক্ষা নিরীক্ষা সুকৌশলে নুসরাত ডায়গনিষ্টক সেন্টারে করা হয়ে থাকে। উক্ত দূর্নীতিবাজ কর্মচারী সরকারী দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন না করে তার নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সার্বক্ষনিক সময় দিয়ে থাকে। এ ব্যপারে এলাকার জনগণ অতিষ্ট হয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উর্দধতন কর্মকর্তা বরাবরে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেও দুর্নীতি চালিয়ে যাচ্ছে। সাধারণ  রোগীদের কাছ থেকে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। অপরদিকে গত ১৬.০৫.১৬ইং তারিখে সিভিল সার্জন অফিস থেকে ইসিজি মেশিন ০৩.০৬.১৬ইং ঢাকা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ইএসডি শাখা থেকে প্রেরণ করেন। ২৮.০১.১৬ইং তারিখে এসিসহ , আলট্রাসনোগ্রাম মেশিন প্রিন্টারসহ জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয় হতে প্রদান করেন। এক্স-রে মেশিন থাকার পরেও তার কোন কার্যকারীতা নেই। বর্হিঃ বিভাগ ও জরুরী বিভাগে রোগী এলেই মেশিনপত্র নষ্টের অজুহাত দেখিয়ে  হাসপাতাল গেট সংলগ্ন নুসরাত ডায়গনিষ্টক সেন্টারে পাঠায় । রোগীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে । ফলে সাধারণ গরীব মানুষ গুলো প্রতিনিয়তই প্রতারণার শিকার হচ্ছে। এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প:প: কর্মকর্তা ডাক্তার আবু আহমেদ আল মামুন বলেন, হাসপাতালে ইসিজি মেশিন চালু রয়েছে , আলট্রাসনো মেশিনের জন্য রুমের সমস্যার কারণে আগামী সপ্তাহে চালু করা হবে। এছাড়াও ডাক্তারদের হাসপাতালে আসা রোগীদের যাবতীয় পরিক্ষা নিরীক্ষা সরকারী ভাবে করার জন্য বলবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *