আটঘরিয়ায় শীতের সবজিতে স্বস্তির নিঃশ্বাস ক্রেতাদের

পাবনা জেলা প্রতিনিধিঃ
আটঘরিয়ায় ক্রেতাদের নাগালের মধ্যে নিত্যপণ্য শীতের সবজিতে স্বস্তির নিঃশ্বাস। যে সময় সরবরাহ ভালো থাকে তখন স্বস্তির আর যখন সরবরাহ কম থাকে তখন আপনা আপনি বেড়ে যায় নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম। তারই ধারাবাহিকতায় পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার বিভিন্ন কাঁচাবাজার গুলোতে কমতে শুরু করেছে বিভিন্ন ধরনের শীতকালীন সবজির দাম।

উপজেলা বেশ কয়েকটি কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, সপ্তাহের ব্যাবধানে সরবরাহ বেড়েছে শীতকালীন সবজির। ফুলকপি, বাঁধাকপি, শিম, গাজর, লাউ, কাঁচা টমেটো, মুলা, বেগুনসহ নানা রকমের সবজিতে বাজার ভর্তি। পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকায় আগের সপ্তাহের তুলনায় পাঁচ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত কমেছে বিভিন্ন ধরনের সবজির দাম।

কমে এসেছে শীতকালীন নতুন সবজি শিমের দাম। ১৮জানুয়ারি বাজারে প্রতি কেজি শিম বিক্রি হ”েছ ৩০ থেকে ৪০ টাকা দরে। আগের চেয়ে কিছুটা সরবরাহ বেড়েছে ফুলকপি ও বাঁধাকপির। এতে দামও কিছুটা কমে এসেছে এই সপ্তাহে। বাজার ও আকারভেদে ফুলকপি ২০ থেকে ৩০ টাকা এবং বাঁধাকপি ২০ থেকে ৩৫ টাকা পিস বিক্রি হতে দেখা গেছে। এছাড়া বেগুন প্রতি কেজি ৩০ থেকে ৪০ টাকা, মুলা কেজি ১৫ থেকে ২০ টাকা, কাঁচকলা প্রতি হালি ২০ থেকে ২৫ টাকা, লাউ আকারভেদে প্রতি পিস ২৫ থেকে ৩০ টাকা, ঝিঙা ২৫ থেকে ৩০ টাকা কেজিতে বিক্রি হ”েছ।

পাকা টমেটো বিক্রি হ”েছ কেজি প্রতি ৩০ থেকে ৪০ টাকা দরে। তবে কাঁচা টমেটোও বাজারে আসতে শুরু করেছে। এসব টমেটোর দাম একটু কম। ২০ থেকে ২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে কাঁচা টমেটো। এদিকে ২০ থেকে ২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হ”েছ গাজর। তবে পাইকারি বাজার ছাড়া সবকটি খুচরা বাজারে এই মরিচ বিক্রি হ”েছ প্রতি কেজি ৫৫ থেকে ৬০ টাকা দরে। এছাড়া দেশি পেঁয়াজ ৩০ থেকে ৩৫ টাকা এবং আমদানী করা পেঁয়াজ ২৫ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায়।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, শীতের মধ্যে এমন সময়ও আসে যখন সবজিতে বাজার ভরা থাকে। কিন্ত সেগুলো কেনার মতো কোনো লোক থাকে না। সরবরাহ বেশি থাকলে এরকম অব¯’া হয়। শীত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সবজির দাম আরও কমবে বলেও জানান তারা। এদিকে অপরিবর্তিত রয়েছে ব্রয়লার মুরগি, গরুর মাংস, খাসির মাংস এবং মাছের দাম। বাজারভেদে ব্রয়লার মুরগির কেজি বিক্রি হ”েছ ১৫০-১৬০ টাকায়। গরুর মাংস ৫০০-৫৮০ এবং খাসির মাংস ৭০০-৮০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হ”েছ। শসা ৪০ টাকা, পটল ৩৫ টাকা, বরবটি ৪০ টাকা, তিতা করলা ৩০ টাকা, পেঁপে ২০-২৫ টাকায় বিক্রি হ”েছ। মুলা শাক ১০ টাকা, পালং শাক ১৫ টাকা এবং লাল শাকের আঁটি ১০-১৫ টাকায় পাওয়া যা”েছ।

আরও পড়ুন

Friday, May 13, 2022

সর্বশেষ