জলঢাকায় অসহায়-হতদরিদ্রদের আহার যোগাচ্ছে কর্মসংস্থান কর্মসূচি (ইজিপিপি)

মোঃমশিয়ার রহমান,নীলফামারী প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর জেলার জলঢাকা উপজেলায় ২০২১-২০২২অর্থ বছরে চলমান ‘অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি’ (ইজিপিপি) প্রকল্পের আওতায় কর্মসংস্থান পেয়েছে অতিদরিদ্র শ্রমজীবী নারী পুরুষ। তাদের কাজে সাফল্যের মুখ দেখেছে এ কর্মসূচি। এ কর্মসূচির কল্যাণে উপজেলার উন্নয়নে যোগ হয়েছে একটি নতুন মাত্রা।নীলফামারী কৃষি নির্ভরশীল জেলা। এখানে নেই তেমন কোনো কল-কারখানা বা শিল্প-প্রতিষ্ঠান। কৃষি কাজই এ অঞ্চলের মানুষের একমাত্র কর্মসংস্থানের মাধ্যম। আবার অনেক কৃষকই দিনযাপন করেন দারিদ্র্যসীমার নিচে। সাধারণত শুষ্ক মৌসুমে দরিদ্র মানুষের কর্মসংস্থানের তেমন সুযোগ থাকে না। বাধ্য হয়ে বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতে হয়। ঋণের টাকা পরিশোধে হতে হয় নাজেহাল। এসব দরিদ্র মানুষেরা যাতে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতে পারে সেই জন্য বিশ্বব্যাংকের অর্থ সহায়তায় বাংলাদেশ সরকার চালু করেছে ‘অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসূচি’ (ইজিপিপি)।উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২০২১-২০২২ অর্থ বছরে ১ম পর্যায়ে প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য প্রাপ্ত বরাদ্দ উপজেলার এগারটি ইউনিয়নে আয়তন ও জনসংখ্যার ভিত্তিতে বিভাজন করে মজুরি পরিশোধের জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংকসমূহে প্রেরণ করা হয়েছে।উপজেলার শিমুল বাড়ী ইউনিয়নের বেশ কিছু প্রকল্প ঘুরে দেখা যায়, গৃহীত প্রকল্পের শ্রমিকেরা স্বতস্ফূর্তভাবে কাজ করছেন। প্রকল্পে শ্রমিকদের উপস্থিতি শতভাগ এবং কাজের মানও সন্তোষজনক।
শিমুলবাড়ি ইউনিয়নের ঘুঘুমারী এলাকার ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রমজান আলী জানান, আমার ওয়ার্ডে যে সকল শ্রমিকেরা কাজ করেন তাদের সকলেই হতদরিদ্র। এ কর্মসূচির কারণে তাদের আয়ের পথ অনেক সহজ হয়েছে। ছেলে-মেয়েদের লেখা পড়ার আর্থিক দৈন্যতা দূর হয়েছে।আমি নিজে উপস্থিত থেকে প্রকল্প শুরুর দিন থেকে সকাল ৮থেকে ৪টা পযর্ন্ত সাথে থেকে কাজ সহ দেখা শুনা করে আসতেছি।শিমুলবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান হামিদুল ইসলাম বলেন আমি নিজে বিভিন্ন সময়ে অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসূচি পরিদর্শন করেছি এবং চলমান কাজে স্বচ্ছতা আছে। এভাবে কাজ চলমান থাকলে প্রকল্প শতভাগ পূরণ করা সম্ভব হবে।

আরও পড়ুন

Wednesday, May 18, 2022

সর্বশেষ