ভোলার বোরহানউদ্দিনে কাফনের কাপর পড়ে প্রতীক আনতে যাওয়ার পথে হামলা ॥ আহত-১০

ভোলা প্রতিনিধি ॥ চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনের ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার পক্ষিয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো: আলাউদ্দিন সরদার কাপনের কাপর পড়ে প্রতীক আনতে গিয়ে পথে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থনকারীদের হামলায় ১০জন আহত ও ১০ টি মোটরসাইকেল ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (০৭ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে বোরহানউদ্দিন উপজেলা সড়কে এ ঘটনা ঘটে।
পক্ষিয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী (চশমা প্রতিক) মো. আলাউদ্দিন সর্দার অভিযোগ করে বলেন, আমি বঙ্গবন্ধু’র আদর্শ সৈনিক। জনগনের ভালোবাসায় আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছি। কাপনের কাপড় পড়ে মাঠে নেমেছি। মৃত্যু হলেও নির্বাচন হতে সড়ে দাড়াঁবো না। আজ প্রতিক বরাদ্ধের জন্য নির্বাচন অফিসের যাওয়ার পথে নৌকা প্রতিকের সমর্থকরা আমার উপর হামলা করে। ওই সময় আমার ১০ জন নেতাকর্মীকে পিটিয়ে আহত করেন। ওই সময় হামলাকারীরা আমার সমর্থকদের ৭/৮টি মোটর সাইকেল ভাংচুর করেছে। আমি এ হামলার ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।
পক্ষিয়া ইউনিয়নের নৌকা প্রতিক চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. নাগর হাওলাদার তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি রিটানিং অফিসারের কাছ হতে প্রতিক নিয়ে আমার নেতাকর্মী সহ এলাকায় চলে এসেছি। আমার প্রতিপক্ষ প্রার্থী মিথ্যা হামলার কথা বলে আমাকে নিয়ে বিভিন্ন খারাপ ভাষায় কথা বলেছেন। একজন প্রার্থী কিভাবে কাপনের কাপড় পড়ে নির্বাচন অফিসে আসে। একটু সুষ্ঠু নির্বাচন পরিবেশকে অশান্ত করতে কাপনের কাপড় পড়ে আমার নামে মিথ্যা স্লোগান দেয়। আমি নির্বাহি অফিসার, রিটার্নি অফিসার, বোরহানউদ্দিন থানার ওসিকে বিষয়টি অবহিত করেছি। তবে হামলা ও ভাংচুর বিষয়ে আমি জানি না।
বোরহানউদ্দিন নির্বাচন অফিসার ও রিটানিং কর্মকর্তা মোঃ শহীদুল্লাহ জানান, এ বিষয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আলাউদ্দিন সরদার মৌখিতভাবে বলেছে, কিন্তু লিখিতভাবে জানানো হয়নি।
এ ব্যাপারে বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার ইন-চার্জ মো. শাহিন ফকির জানান, সংঘর্ষের কথা শুনে ঘটনাস্থলে তাৎক্ষনিক পুলিশ গেলে উভয় গ্রুপ ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। ওই সময় কোন অপ্রিতিকর ঘটনা ঘটেনি।

আরও পড়ুন

Friday, May 20, 2022

সর্বশেষ