৭ই মার্চ ভাষণের উপর গবেষণা ফোলোশিপ চালু করার দাবি

শানাজ  পারভীন  রলি : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ ভাষণ গবেষণার উপর ‘ডক্টর অব ৭ই মার্চ’ ডিগ্রী চালু করার দাবি জানান বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ফোরাম (বোয়াফ)।

সোমবার (৭ মার্চ) ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে ধানমন্ডি ৩২ এ বঙ্গবন্ধু’র প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্পণ ও শ্রদ্ধার পর সংগঠনের পক্ষে এই দাবি জানানো হয়।
বোয়াফ সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় বলেন, ১৯৭১ সালে ৭ই মার্চ  রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাঁর দীপ্ত সাহসে, অর্জিত বিশ্বাসে ঐতিহাসিক ভাষণের মাধ্যমে বাঙালির সকল শ্রেণীপেশার মানুষকে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীন-সার্বভৌমত্বের লক্ষে যে ভাবে ঐক্যবদ্ধ করতে সক্ষম হয়েছিলেন, বিশ্বে তা অতুলনীয় এবং বিখ্যাত।
তিনি আরও বলেন, বিশ্ব আজ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সেই জাদুকরী ভাষণ নিয়ে গবেষণা করে নেতা ও নেতৃত্বের উপর একটি মানুষ কিভাবে অবিচল ঠাঁয় দাঁড়িয়ে বজ্র কন্ঠে দিক নির্দেশনা দিয়েছে, কিভাবে পরবর্তী কর্মকান্ড এগিয়ে নেওয়ার সুপরিকল্পনা প্রদান করেছে, কিভাবে নেতার অনপুস্থিতে বুকের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে লাল-সবুজ’র বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করবে তার গবেষণামুলক নতুন নতুন তথ্য তৃতীয় বিশ্বের প্রজন্মের কাছে তুলে ধরছে।
কবীর চৌধুরী তন্ময় বলেন, সরকার ও এর সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মর্তাদের উচিৎ হবে, ৭ই মার্চ ভাষণের উপর গবেষণা ফোলোশিপ চালু করার মাধ্যমে রাজনৈতিক, গবেষক, শিক্ষক, কবি-সাহিত্যিকসহ নতুন প্রজন্মের মাঝে উদ্যোগ, উদ্দিপনা সৃষ্টির দৃষ্টান্ত স্থাপন করা।
ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ ভাষণের গুরুত্ব, তাৎপর্য এবং একজন নেতা ও তাঁর নেতৃত্বের বলিষ্ঠ  কন্ঠের শব্দ মালাগুলো যত বেশী গবেষণা হবে, যত বেশী নতুন প্রজন্মের মাঝে তুলে ধরা হবে; ততবেশী প্রজন্ম শিখবে-জানবে এবং নিজেদের সেভাবে তৈরি করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন বোয়াফ সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময়।
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্পাণ ও শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনের সহ-সভাপতি রাশিদা হক কনিকা, জেবুনেসা বেগম জলি, ডেবিট এ হালদার, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ব্লগার রফিকুল ইসলাম রাকিব, সদস্য জুয়েল চক্রবর্তী, রাব্বি চৌধুরী, রাকিব সজল, এনায়েত হোসেন বাবলু খান মিহাদুল ইসলামসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

আরও পড়ুন

Friday, September 24, 2021

সর্বশেষ