ইউপি নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা আসতে পারে রাতেই

দুই দফায় অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন শেষ হওয়ার পরই পরবর্তী নির্বাচনগুলো বর্জন করার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বিএনপি। রোববার রাতে গুলশানে অনুষ্ঠিত দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বৈঠক শেষে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে।

রাত সাড়ে ৮টায় বিএনপির চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বৈঠকের কথা নিশ্চিত করেছেন।

বৈঠকে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য, ভাইস চেয়ারম্যান, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, যুগ্ম মহাসচিব ও সাংগঠনিক সম্পাদকদের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

দেশের সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি, ইউপি নির্বাচন, সারাদেশে বিএনপির সাংগঠনিক অবস্থা, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারিসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এর আগে দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন অভিযোগ করে ইউপি নির্বাচন বাতিল করে নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ চেয়েছে বিএনপি। ইউপি নির্বাচনের সামনের দফাগুলোতে বিএনপি অংশ নেবে কি না এমন প্রশ্নে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘রাতে এ নিয়ে দলের সিনিয়র নেতারা বৈঠক করবেন। পরে তারা সিদ্ধান্ত জানাবেন।’

একই দিনে অন্য এক অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম বলেন, ‘ইউপি নির্বাচনে আমাদের কিছু করা লাগে না। আওয়ামী লীগ নিজেরা নিজেরা লড়াই করে ৪২ জন মেরে ফেলেছে। এই খুন-অনাচার-ভোট কারচুপি, এটা আমাদের জন্য সম্মানজনক না। ভোট ডাকাতি, কেন্দ্র দখল, বিএনপির প্রার্থীদের বিজয় ছিনিয়ে নেয়া ও সহিংসতার পর আমাদের জন্য ভোটে থাকা কতটা সম্মানজনক হবে, আলোচনা করে সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘মানুষজন আগে বিশ্বাস করতো না যে, আওয়ামী লীগ কী জিনিস? কিন্তু এখন গ্রামের লোকেরা তা বুঝতে পারছে। ভোট দিতে গিয়ে দেখে, ভোট দেয়া হয়ে গেছে অথবা ব্যালট পেপার কেড়ে নেয়া হচ্ছে। তাদের চোখের সামনে ক্ষমতাসীনরা এই ঘটনাগুলো ঘটাচ্ছে।’ এসময় তার কথাও নির্বাচনে না থাকার ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

আরও পড়ুন

Friday, September 24, 2021

সর্বশেষ