আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অধিবেশন চলছে

রাজনীতি ডেস্ক : রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউট চত্বরে দুই দিনব্যাপী আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনের শেষ দিনে কাউন্সিল অধিবেশন শুরু হয়েছে। আজ রবিবার সকাল সাড়ে ৯টা ৩৮ মিনিটে আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইনস্টিটিউট চত্বরে যোগ দিলে অধিবেশন শুরু হয়। তিনি এই অধিবেশনে সভাপতিত্ব করছেন।
এর আগে সকাল ৮টা থেকে কাউন্সিল অধিবেশনে প্রবেশ করেন কাউন্সিলররা। এ ছাড়াও মৎস্য ভবন থেকে শাহবাগ ও টিএসসিতে দলীয় নেতাকর্মীরা ও সমর্থকরা জড়ো হন।
রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে অনুষ্ঠিত এই অধিবেশনে নিয়ম অনুসারে শুধু কাউন্সিলররাই অংশ নিয়েছেন। অধিবেশন পরিচালনা করছেন দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ৬ হাজার ৫৭০ জন কাউন্সিলর এতে অংশ নিচ্ছেন।
নিরাপত্তার জন্য আজও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমোদিত ব্যক্তি ছাড়া সর্বসাধারণের প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে।
কাউন্সিল অধিবেশনে কয়েকজন কাউন্সিলরকে ৩ মিনিট করে বক্তব্য দেয়ার সুযোগ দেয়া হবে। প্রতিটি জেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক তাদের সাংগঠনিক প্রতিবেদন পেশ করবেন।
এরপর দলের গঠনতন্ত্রের সংশোধন ও ঘোষণাপত্র অনুমোদন দেয়া হবে। গঠনতন্ত্র সংশোধনের পরপরই বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশনের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করা হবে। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা হওয়ার পর নির্বাচিত সভাপতি একটি সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেবেন। এর মাধ্যমে শেষ হবে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিকতা।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল শনিবার সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে বলেন, ইতিমধ্যে দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ইউসুফ হোসেন হুমায়ুনের নেতৃত্বে ৩ সদস্যের নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছে। রেওয়াজ অনুযায়ী কাউন্সিলরদের মধ্য থেকে একজন সভাপতি পদের জন্য নাম প্রস্তাব করেন। আরেকজন তা সমর্থন করেন। সাধারণ সম্পাদক পদেও একই পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়।
দলের দায়িত্বশীল নেতারা বলছেন, আওয়ামী লীগের রেওয়াজ অনুযায়ী সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। এতে আজই এ প্রশ্নের মীমাংসা হয়ে যাওয়ার কথা।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ ৮৩টি। নতুন ৮ পদসহ কমিটিতে ১১টি পদ খালি আছে। তা ছাড়া বিগত কমিটির কয়েকজন নেতা কেন্দ্রীয় কমিটি থেকে বাদ পড়তে পারেন বলে একাধিক নেতা গতকাল জানান।
এবারের সম্মেলন আয়োজন, আঙ্গিক ও সাজসজ্জা খুবই জৌলুশপূর্ণ বলে দলের নেতারা মনে করছেন। গতকাল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের উদ্বোধনী সম্মেলন প্যান্ডেল, আশপাশের মাঠ ও উদ্যানের বাইরে বিপুল নেতাকর্মীর সমাগম হয়।
ক্ষমতাসীন দলের এই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও আশপাশের এলাকায় গতকাল যানবাহন চলাচলে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়। সন্ধ্যার পর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও এর আশপাশের এলাকায় যান চলাচলের নিয়ন্ত্রণ তুলে নেয়া হয়েছে। বেশ কিছু সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকায় দুর্ভোগে পড়ে সাধারণ মানুষ।

আরও পড়ুন

Tuesday, October 19, 2021

সর্বশেষ