ভোলায় জমির বিরোধ নিয়ে প্রবাসীর স্ত্রীকে মারধর ॥ বাড়ী-ঘর পুড়িয়ে দেয়ার হুমকি

ভোলা প্রতিনিধি : ভোলা সদর উপজেলার দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডে জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে ব্যাপক মারধর এবং বাড়ী-ঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে  দেয়ার হুমকির অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলার স্বীকার সৌদি প্রবাসী মোঃ আব্দুস সালাম এর স্ত্রী সেফালী বেগম সাংবাদিকদের কাছে জানান, একই এলাকার আঃ রশিদের ছেলে ছালেম ওরফে হাঁড়ী ছালেম ওরফে সুদি সালেমের সাথে তাদের জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। প্রায় দের যুগ আগে আফছের বেপারীর কাছ থেকে ৩০ শতাংশ জমি ক্রয় করে তারা দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের দক্ষিণ বালিয়া গ্রামে বসবাস শুরু করেন। সেখানে জমি কেনার পর থেকেই হাঁড়ি ছালেম তাদেরকে বিভিন্ন সময় হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। এসব ঘটনা নিয়ে গৃহবধু সেফালী বেগম স্থানীয় চেয়াম্যান ও গন্যমান্য ব্যক্তিদেরকে অবগত করেছেন। এতে হাঁড়ি ছালেম বিষয়টি ভালোভাবে মেনে নেয়নি। ৩ বছর পূর্বে তার স্বামী জীবিকার তাগিদে সৌদি চলে যাওয়ায় সে আরো  বেপরোয়া হয়ে উঠে। সর্বশেষ গত বৃহপতিবার ঘরের পাশে বেড়া দেওয়াকে কেন্দ্র করে হাঁড়ি ছালেম এর সাথে সেফালী বেগমের কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে হাঁড়ি ছালেম সেফালীকে এলোপাতারি মারধর এবং শ্লীলতাহানী করেন। পরে সেফালী বেগম ভোলা সদর মডেল থানায় ছালেমের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দাখিল করেন। এতে আরো বেশি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে ছালেম। ঘটনার পর থেকে হাড়ি ছালেম প্রবাসীর স্ত্রীর পরিবার ও বাড়ীঘরসহ পুরিয়ে এলাকা থেকে বিতারিত করার হুমকি দিচ্ছে।  সেফালী বেগম আরো জানান, হাড়ি ছালেমের ৫ ছেলের মধ্যে কয়েকজন তার কলেজ পরুয়া মেয়েকে বিভিন্ন ভাবে উত্যক্ত করছে।
স্থানীয়রা জানান, হাঁড়ি ছালেম খুবই দুন্দর ব্যক্তি। সে যখন যে দল ক্ষমতায় আসে, সে দলের সাথে মিসে ওই ক্ষমতাকে ব্যবহার করে এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে থাকে। এছাড়া সে এলাকায় সুধের ব্যবসার সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। ইতিমধ্যে হাড়ি ছালেম  সেফালী বেগমকে আরো বেশ কয়েকবার মারধর করার অভিযোগ রয়েছে। স্থানীয়রা আরো অভিযোগ করেছেন, হাঁড়ি ছালেম চক্রবর্তী সুধের টাকার  ব্যবসা করে সে এখন কোটিপতি বনেগেছেন। এককথায় আঙ্গুল ফুঁলে কলাগাছ। তার অত্যাচারে এলাকাবাসিও অতিষ্ট হয়ে পরেছেন। স্থানীয়  ইউপি সদস্য ফারুক ডাক্তার নির্বাচিত হওয়ার পর তাকে টাকার মালা উপহার দিয়ে হাঁড়ি ছালেম এলাকায় নানান অপকর্ম করে আসছে। তার বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করতে সহস পাচ্ছেনা।
তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ভূক্তভোগী  সেফালী বেগম ও এলাকাবাসি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। অভিযুক্ত হাঁড়ি ছালেম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তার সাথে কোন মারামারি হয় নাই।
এব্যাপারে ভোলা থানার পুলিশ পরিদর্শক এসআই সামসুল হক জানান, গৃহবধুকে মারধরের ঘটনায় আমরা অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন

Wednesday, December 8, 2021

সর্বশেষ