ইউপি নির্বাচনের পর দৌলতখান আ.লীগে চাপা ক্ষোভ উত্তেজনা তৃণমূলে বিভক্তির সুর

মীর মোহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন ভোলা : সদ্য সমাপ্ত দুই ইউপি নির্বাচনের রেশ না কাটতেই দৌলতখান উপজেলা আ.লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ নিয়ে তৃণমূলেও বিভক্তি শুরু হয়েছে। ১৬ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হয়েছে উপজেলার সৈয়দপুর ও হাজীপুর ইউপি নির্বাচন। যদিও এ নির্বাচনকে ইতিমধ্যেই লোকজন প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন আখ্যা দিয়েছে।
অনুসন্ধানে জানাগেছে, ১৬ এপ্রিল অনুষ্ঠিত দুই ইউপি নির্বাচনে আ.লীগের একাধিক প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পাওয়ার জন্য ব্যাপক গ্রুপিং লবিং তদবির করেছিলেন। মনোনয়ন না েেয় একজন আবার বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছিলেন। অবশ্য তিনি শেষ পর্যন্ত তা প্রত্যাহার করেছেন। তবে ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যানসহ কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি নৌকা প্রতীক পাওয়ার জন্য চেষ্টা চালিয়ে ব্যার্থ হয়েছেন। তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য হল উপজেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মুন্সি ওবায়েদুল্লাহ রতন। উপজেলা আ.লীগের বন ও পরিবেশ সম্পাদক সিরাজ তালুকদারসহ আরো কয়েকজন। তারা দলের মনোনয়ন না পাওয়ার কারনে তাদের সমর্থিত নেতাকর্মিরাও চরম ক্ষুদ্ধ ও হতাশ। অন্যদিকে প্রতিটি ওয়ার্ডেই আ.লীগের একাদিক মেম্বার পদে প্রার্থী থাকার কারনে ঝটলা সৃষ্টি হয় প্রথম থেকেই। নির্বাচনে মেম্বার প্রর্থী নিয়ে নেতাদের মধ্যে টানাপোড়েন দেখা দেয়। স্থানীয় এমপির আর্শিবাদ নিয়েই তারা প্রার্থী হয়েছিলেন বলে জানান। তবে নির্বাচনের দিন আসল চেহারা পরিস্কার হয়ে যায় কার প্রতি জোড়ালো আর্শিবাদ ছিল এমপির। বিশেষ করে এমপির প্রতিনিধি উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হামিদুর রহমান টিপুর সন্ত্রাসী আচরণে আ.লীগের নেতাকর্মিরা আ.লীগের প্রতি চরম ঘৃনা আর ধিক্কার প্রকাশ করেছেন। টিপুর কর্মকান্ডে দৌলতখানের আ.লীগের সিনিয়র নেতারাও চরম ক্ষুদ্ধ হয়েছেন। তবে সৈয়দপুর ৪নং ওয়ার্ডের একজন মেম্বার প্রার্থীর পক্ষ হয়ে প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী ইয়ারুল হককে কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়াসহ নানা অভিযোগ এনে ঐ প্রার্থী সংবাদ সম্মেলন করে ভোট বর্জন করেছেন। অপরদিকে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা মনোনয়ন না পেয়েও তারাও চরম ক্ষুদ্ধ। এদিকে হাজীপুর ইউপিতেও আ.লীগের সাবেক চেয়ারম্যান হাবিবুল্লাহ হাবুসহ কয়েকজন নেতা মনোনয়ন পাওয়ার জন্য ব্যাপক দৌড়ঝাপ চালিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত তারাও মনোনয়ন পাননি। সেই ইউপিতে বিএনপির প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা না দেওয়ায় টিপু বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। আ.লীগের বহু নেতাকর্মি আক্ষেপ করে বলেছেন, একই দিন হাজীপুর ইউনিয়নে নির্বাচন হয়েছে। অথচ সেখানে একটি বারের জন্য যায়নি টিপু।

আরও পড়ুন

Tuesday, December 7, 2021

সর্বশেষ