রামগঞ্জে কলেজ ছাত্রকে আটক করে মুক্তিপণ আদায়

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ মডেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র ইয়াছিন আরাফাত রাব্বীকে বুধবার সন্ধায় শিশুপার্ক থেকে আটক করে ইয়াবা ব্যবসায়ী ও হোন্ডাচুরির মামলার ভয় দেখিয়ে আ”লীগ নেতাদের মধ্যস্থায় এক লক্ষ টাকা মুক্তিপন নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে থানা পুলিশের বিরুদ্ধে। এনিয়ে উপজেলাব্যাপী সমালোচনার ঝড় উঠেছে।
সূত্রে জানায়, দরবেশপুর ইউনিয়নের আলীপুর পূর্ব আঠিয়া বাড়ির আনোয়ার হোসেন বাবুলের ছেলে রামগঞ্জ মডেল বিশ্ব বিদ্যালয়ের ্র দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ইয়াছিন আরাফাত রাব্বিকে থানার এস.আই মোমিন মোবাইলে ফোনে করে পৌর শিমু পার্কে আসতে বলে। পরিচিত পুলিশ অফিসারে কথামতে রাব্বী  বুধবার সন্ধ্যায় শিশুপার্কে উপস্থিত হলে এস.আই মোমিন আটক করে থানায় নিয়ে স্বজনদেও খবর দিয়ে ৫লক্ষ টাকা দাবী করে। টাকা না দিলে ইয়াবা ব্যবসায়ী  কিংবা মোটরসাইকেল চুরি মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে জেলে পাঠাবে বলে রাব্বীর মা-বাবাকে হুমকি দেয়। এতে দিশেহারা হয়ে মা-বাবা উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সাধানর সম্পাদক আকম রুহুল আমিন, সাবেক পৌর মেয়র ও পৌর আ’লীগের সাধারন সম্পাদক বেলালআহম্মদের ধারস্থ হলে এক লক্ষ টাকা মুক্তিপন দিয়ে বৃহস্পতিবার রাত ১০টায়  মুক্তি পায়।
শুক্রবার দুপুরের ইয়াছিন আরাফাত রাব্বি সাংবাদিকদের বলেন,আমাকে এস.আই মোমিন মোবাইল করে ডেকে নিয়ে থানায় আটক রেখে নানা ভয়ভীতি দেখি ৫লক্ষ টাকা মুক্তিপন দাবী করে। উপজেলা চেয়ারম্যান ও সাবেক পৌর মেয়রের হস্তক্ষেপে এক লক্ষ টাকা মুক্তিপন দিয়ে বৃহস্পতিবার রাত ১০টা মুক্তিলাভ করি।
ইয়াছিন আরাফাত রাব্বির মা মোবাশ্বরা বেগম জানান,পুলিশ ষড়যন্ত্র করে টাকা নেওয়া জন্য রাব্বি আটক করে,আমি অপারেশন রোগী ছেলে যদি কিছু হয়ে যায় তাই উপজেলার চেয়ারম্যানের হাতে পুলিশের চাহিদা মোতাবেক এক লক্ষ টাকা দিয়ে ছেলেকে মুক্ত করি। আটককৃত অফিসার এস.আই আঃ মোমিন বলেন,আমি আটক করে থানা হাজত খানা রেখেছি। আমার উর্ধতম কর্মকর্তা কী ভাবে ছেড়েছে বলতে পারবো না।
রামগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ তোতা মিয়া জানান, রাব্বিকে জিজ্ঞাসা করতে আটক করছি ,পরে উপজেলা চেয়ারম্যানের জিম্মায় ছেড়ে দিয়েছি।

 

 

 

 

আরও পড়ুন

Monday, November 29, 2021

সর্বশেষ