দৌলতখানে জাল সনদে ৮ম শ্রেনীর ছাত্রীর বাল্য বিয়ে : টাকার বিনিময়ে ধামাচাঁপা

মীর মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন : দৌলতখান উপজেলার উওরজয়নগর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের এক ৮ম শ্রেনীর ছাত্রীর জাল সনদে বাল্য বিয়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে, চাউলতাতলী জয়নাল আবেদীন ল্যবরেটরী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী  রোখসানা আক্তার পাখির জন্ম সনদ জাল করে মুলাদি পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের দলিলউদ্দিনের ছেলে সোহেলের সাথে বাল্য বিয়ে সম্পাদন করেছে পাখির মা রহিমা বেগম। আর এ বিয়েতে প্রবাসে থেকে সহযোগিতা করেছেন পিতা ইয়াছিন ফরাজী।

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, রোখসানা আক্তার পাখির প্রেমে পড়ে দৌলতখানে একমি কোম্পানিতে এস আর পদে কর্মরত মুলাদির সোহেল। একপর্যায়ে তাকে বিয়ের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে সোহেল। সে অনুযায়ী পাখির পিতা -মাতার সম্মতিতে তার জন্ম সনদ জাল করে গত দু মাস পূর্বে বাল্য বিয়ের কাজ সম্পাদন করে তারা। সোহেলের এই কাজে অসহযোগিতা করেছে বাংলাবাজারের বন্দু নাজমুল হক,এরিস্টফার্মার এম আর । এদিকে বিষয়টি স্থানীয় ভাবে জানাজনি হলে পাখির পরিবার ও সোহেল জনপ্রতিনিধি, কতিথ সাংবাদিক ও প্রভাবশালী ব্যক্তিকে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি ধামাচাঁপার জন্য দৌরঝাঁপ করছে বলে খবর পাওয়া গেছে। অন্যদিকে সোহেল জাল সনদ করলেও  আইন প্রশাসন তার কিছুই করতে পারবেনা বলে
দাম্ভিকতার সাথে ঘুরে বেড়াচ্ছে।
জয়নাল অাবদীন ল্যবরেটরী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নোমান জানান,বাল্য বিয়ের খবর শুনেছি । খোজখবর নেয়া হচ্ছে।
অভিযুক্ত সোহেল বিয়ের কথা স্বীকার করলেও সনদ জালের বিষয়টি এড়িয়ে যায়। ইউপি সদস্য শিউলি আক্তারের স্বামী বজলুর রহমান জানান,আমাদের কাছে জন্ম সনদের জন্য এসেছিল। কিন্তু আমরা দেইনি।
পরিষদের উদ্যোক্তা আজাদ জানায়, রোখসানা আক্তার পাখি নামে কাউকে জন্ম সনদ দেয়া হয়নি।

আরও পড়ুন

Monday, November 29, 2021

সর্বশেষ