ভোলার মেঘনায় ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে রূপালি ইলিশ

ভোলা প্রতিনিধি ॥ দীর্ঘ অপেক্ষার পর হাসি ফুটেছে মেঘনা পাড়ের জেলেদের মুখে। নদীতে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে রূপালি ইলিশ। ইলিশ ধরাকে কেন্দ্র করে ভোলার মেঘনা নদীর গোটা উকূলীয় এলাকায় হাজার হাজার জেলে পরিবারে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। বিশেষ করে সামরাজ, বকশী, খেজুরগাছিয়া, ঘোষেরহাট, মাদ্রাজ, বেড়িভাঙ্গা, বেতুয়া, হাজীরহাট, ঢালচর, চরপাতিলা, কুকরি-মুকরি মৎস্য ঘাটগুলোতে ভোর থেকে রাত পর্যন্ত ব্যস্ত সময় পার করছেন আড়তদারসহ মৎস্য ব্যবসায়ীরা।
মৎস্য ঘাটের ব্যবসায়ীরা জানান, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার ইলিশের আকারও বেশ বড়। এখন ৫শ’ গ্রাম সাইজের প্রতি হালি (৪টি) ইলিশের সর্বোচ্চ দাম ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা। ১ কেজি সাইজের প্রতি হালি দেড় হাজার থেকে আড়াই হাজার টাকা। আর জাটকার কেজি ১৩০-১৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দাম নাগালে থাকায় ইলিশ কিনে খুশি সাধারণ মানুষ।
সামরাজ ঘাটের আড়তদার মালেক ব্যাপারী জানান, মেঘনা নদীতে জেলেদের জালে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ায় আনন্দের কমতি নেই। এভাবে চলতে থাকলে সবার ভাগ্য বদলে যাবে। বর্তমানে মাছের দর উঠা-নামা করছে। ছোট-বড় মিলিয়ে গড়ে এক পন (৮০টা) ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ হাজার টাকা করে। মৎস্য ব্যবসায়ী ও জেলেদের আশা, নদীতে এভাবে ইলিশ ধরা পড়লে গত বছরের দেনা পরিশোধ করে লাভের মুখ দেখতে পারবেন তারা।
ভোলা জেলা মৎস্য বিভাগ জানিয়েছে, জাটকা নিধন প্রতিরোধের কারণে এবার মাছের আকার বড় হয়েছে। এছাড়া প্রজনন মৌসূমে মা ইলিশ রক্ষা, জাটকা সংরক্ষণ ও জেলেদের পুর্নবাসনসহ মৎস্য অধিদফতরের বিভিন্ন কার্যকর পদক্ষেপের কারণে ইলিশের উৎপাদন ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। জাটকা আহরণ পুরোপুরি বন্ধ করা গেলে ইলিশের সেই সোনালী দিন আবার ফিরে আসবে।

আরও পড়ুন

Sunday, November 28, 2021

সর্বশেষ