ডিমলায় বন্ধকি জমির জেরে ভাগিনা পেটালো মামা।

নীলফামারী প্রতিনিধি : নীলফামারী জেলার ডিমলায় বন্ধকী জমির জেরে ভাগিনাকে বেধরক পেটালো নিষ্টুর মামা মুরাদ হোসেন (৪৫)। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার বিকাল( ৩টায়)ঝুনাগাছচাপানী ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড চাকলা পাড়া নামক স্থানে।সরেজমিনে প্রতক্ষদর্শীরা জানায়,প্বার্শবর্তী জলঢাকা উপজেলার গোলমুন্ডা ৩নং ওয়ার্ড বনগ্রামের বদিয়ার রহমানের ছেলে রহিম বকস (৩৫) (ভাগিনা) ২ বছর পূর্বে এক চুক্তির মাধ্যমে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকার বিনিময়ে ৪৯ শতাংশ জমি মামার কাছ থেকে জমি বন্ধক নেয়।এই বন্ধকী জমি প্রায় ১ বছর থেকে ভাগিনা ভোগ করে আসে।কিন্তু মামা ভাগিনার দেনা পাওনা পরিশোধ না করে কাউকে কোন কিছু না বলে ঐ জমিতে হাল চাষ করা শুরু করলে ভাগিনা প্রতিবাদ জানাতে এগিয়ে আসে।এমন সময় খালা এলিজা বেগমের হুকুমে মামার পরিবারবর্গরা তার উপর চড়াও হয়ে মামাতো ভাই মানিক (২৯),তুহিন ইসলাম (২০),মামাতো বোন মনিরা আক্তার (১৬) ও মামি মোসফেকা বেগম (৩৫)তার (রহিম বকস) এর উপর ঝাপিয়ে পড়ে এবং কিল,ঘুসি আর বাশের খুটি দিয়ে বেধরক পিটাতে থাকে।তাকে বাচাতে স্ত্রী এগিয়ে এলে তাকেও শ্লীনতাহানীসহ পেটাতে শুরু করে।এমন খবর শুনে বৃদ্ধ বাবা বদিয়ার (৬৫) ছেলেকে বাচাতে এগিয়ে এলে তাকেও টানা হেচ্ড়া করে মাটিতে ফেলে পেটায়।এই সুযোগ বুঝে মামী মোসফেকা বেগম দুর থেকে ছুটে এসে হাতে থাকা লাঠি দিয়ে এই বৃদ্ধের মাথায় আঘাত করলে গুরুত্বহ জখম হয়।পরে এলাকাবাসীদের সহযোগিতায় আহতদের জলঢাকা হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাদের চিকিৎসা দিয়ে ভর্তি করায়।অপর আর একটা গোপন সূত্রের মাধ্যমে জানা যায়,মুরাদ হোসেন এরকম ইতিপূর্বে প্রতিবেশীদের সাথে বিভিন্নভাবে মারামারি করে ছিলো।মারামারি করা তার পেশায় পরিনত হয়েছে বলে অনেকে জানায়।এমন কর্মকান্ডের জন্য তাকে মামলাও গুনতে হয়।প্রতিবেশী এক মহিলার সাথে জগড়া বিবাদে জরিয়ে মামলা হয়।মামলা নং জি আর ১২৪/২০০৭ইং।এই মামলায় সে জেল হাজতে বেশ কিছুদিন ছিলো।অপর আর একটি মামলা আপন ভাই তালিমুল ইসলামের সাথে জমি নিয়ে বিরোধের মামলা হয়ে ছিলো।মামলা নং ২৩১/২০১৬ইং।এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছে।

আরও পড়ুন

Thursday, September 23, 2021

সর্বশেষ