পাবনার ঈদের বাজারে ব্যাস্ত সময় পাড় করছে ক্রেতা বিক্রেতারা l

পাবনা জেলা প্রতিনিধি : ঈদ উপলক্ষে পাবনা এখন সরগরম। শহরে  ভিড় ও শপিংমলগুলোর ঝলমলে আলোকসজ্জার দিকে তাকালে এ কথা স্পষ্ট হয় যে, ঈদুল ফিতর আগত প্রায়। রমজানের শুরু থেকেই পাবনায় শুরু হয়ে যায় ঈদের আমেজ। কিন্তু বিশ রোজার পর ধুম পড়েছে কেনাকাটার। দোকানপাট, বিপণি বিতান, বড় বড় বুটিক হাউস থেকে শুরু করে ফুটপাত পর্যন্ত বেড়েছ মানুষের ভিড়। শিশু থেকে শুরু করে সব বয়সী নারী-পুরুষের পদচারণায় সকাল থেকে মধ্যে রাত পর্যন্ত মুখরিত থাকছে বিপণী বিতানগুলো। ঈদ যতই ঘনিয়ে আসছে ততোই বারছে ক্রেতা সমাগম। ব্যবসায়ীদের ব্যস্ততা বেরেছে দিগুন। দম ফেলানোর ফুসরৎ নেই তাদের। সীট কাপড়, তৈরি পোশাক, ষ্ঠেশনারি ও জুতা স্যান্ডেলের দোকানগুলোতে ভির বেশি। শহরের রবিউল মার্কেট, খান বাহাদুর মার্কেট, নিউ মার্কেট, এ আর প্লাজা, নিউ পয়েন্ট, জেড এন্ড প্লাজা, সেঞ্চুরী প্লাজা, স্টার শপিং কমপ্লেক্স, এর আর শপিং কমপ্লেক্স, খান টাওয়ার, আলহাজ সুপার মার্কেট, হুমায়রা মার্কেট, সেভেন স্টার মার্কেটসহ সব মার্কেটেই জমে উঠেছে ঈদের বাজার। ঈদের কেনাকাটার তালিকায় প্রথমেই আসে পোশাক সরেজমিনে জানা গেল এবার ঈদের বাজারে মেয়েদের পোশাক বিক্রির শীর্ষে রয়েছে ইন্ডিয়ান ও চায়না গ্রাউন। এছাড়াও রয়েছে থ্রি-পিস ও লং কামিজ। ডালি ড্রেস, বাড়বি ড্রেস, প্রিন্সেস ইত্যাদি বাহারি সব নামে রয়েছে রকমারি পোশাক। আর ছোটদের জন্য ওয়েস্টার্ন ক্যাপ্রি স্কার্ট, লেহেঙ্গা, পার্টি ফ্রগ সহ বাহারি সব নাম। এসব পোশাক পাওয়া যাচ্ছে পাবনার রবিউল মার্কেটের রাঙ্গঁলী, নিউ আমিন, এ আর শপিং কমপ্লেক্সের কারিসমা, খান বাহাদুরের ফ্যাসান টাচ্ ইত্যাদি। এসব কামিজের দাম কাজ ও ডিজাইন অনুযায়ি । আর এগুলোর সীট কাপর পাওয়া যাচ্ছে নিউ পয়েন্ট মার্কেটের মিনা ফেব্রিক্স, রবিউল মার্কেটের হালিমা বস্ত্রবিতান, জেড এন্ড প্লাজার হ্যাপি ফেব্রিক্স, মিম ফেব্রিক্স
ইত্যাদি। লেডিস টেইলার্সগুলোতে এখন উপচে পড়া ভিড়। এ আর শপিং কমপ্লেক্স মার্কেটের সন্ধা লেডিস কর্ণার, এ টু জেড লেডিস কর্ণার, বিসমিল্লাহ লেডিস কর্ণার ইত্যাদি টেইলার্সগুলো রাত-দিন এখন ব্যস্ত পোশাক তৈরিতে। এবার ঈদ বাজারের শাড়ির দোকানগুলো সাজানো হয়েছে মসলিন, কাতান, জর্জেট, টাঙ্গাইল, সিল্ক, সুতি, এন্ডি ও জামদানি ছারাও ভারত থেকে আমদানি শাড়ি। এসব শাড়ি পাওয়া যাচ্ছে নিউ মার্কেটের লাবনী শাড়ি ঘর, পাবনা শাড়ি কুটি, রবিউল মার্কেটের মাতোয়ারা শাড়ি মেলা, আলহাজ সুপার মার্কেটের সিয়াম শাড়ি প্যালেস ইত্যাদি। কসমেটিকস- এর দোকানে প্রসাধনী ছাড়াও ইমিটেশন গহনা কিনতে শিশু ও তরুণীদের ভির লেগেছে; নিউ মার্কেটের বিনিময় কসমেটিকস, রবিউল মার্কেটের তুলনা প্রসাধনি, খান বাহাদুরের কারিসমা গিফট এন্ড কসমেটিকস ইত্যাদি। এদিকে উচ্চ বিত্ত পরিবারের মেয়েরা সোনার গহনা তৈরি করতে ভীরছেন শহরের সোনাপট্টিতে। ছেলেদের জন্যও রয়েছে বাহারি ডিজাইনের শর্ট ও লং পাঞ্জাবি, ফর্মাল শার্ট, শর্ট শার্ট, টি-শার্ট, পলো শার্ট, ফর্মাল প্যান্ট, জিন্স প্যান্ট, গ্যাবাডিন প্যান্ট ছারাও ভারত ও চীন থেকে আমদানি পোশাক। ছেলেদের এসব পোশাক পাওয়া যাচ্ছে সেঞ্চুরী প্লাজা মার্কেটের তাল, ইয়োরস, এ আর প্লাজা মার্কেটের লাজনা ফ্যাসান, হেরিটিজ, ঢং, রবিউল মার্কেটের কটন ক্লাব, হ্যালো, খান বাহাদুরের কারু পল্লি ফ্যাসান হাউজ, আলাল গার্মেন্টস, নেক্সট, স্টার শপিং কমপ্লেক্সের আজকাল ফ্যাসান,আলহাজ সুপার মার্কেটের প্রিতি ফ্যাসান, সেভেন স্টার মার্কেট, লটো ইত্যাদি। এছারা ছেলেদের টেইলার্সের দোকান মিতালী, অনুপম ইত্যাদি পোশক তৈরিতে এখন অনেক ব্যাস্ত। তাছারা জুতা স্যান্ডেলের দোকানেও উপচে পরা ভির রবিউল মার্কেটের সু চ্যানেল, মডার্ণ সু প্যালেস, অ্যাপেক্স শো-রুম, বাটা বাজার, নিউ মার্কেট, সৈয়দ সুপার মার্কেট ইত্যাদি দোকানগুলোতে। এছারাও ঈদ উপলক্ষে প্রিয়জনকে মনের মত উপহার দিতে ভির করেছে রবিউল মার্কেটের মিম গিফট কর্নার, ওয়ান টু নাইনটি নাইন
ইত্যাদি গিফ্ট কর্ণারগুলোতে। পাবনার ব্যবসায়ীরা ধারনা করছেন ঈদের কেনাকাটার ভির আরও বারবে। ঈদ
ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে পোশাক ও পণ্যদ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিম্ন ও মধ্যবিত্তরা তাদের নূন্যতম চাহিদা মেটাতেও হিমশিম খাচ্ছেন। তাই ক্রেতাদের দাবি, ব্যাবসায়ীরা যেন তাদের ইচ্ছেমত পোশাক ও পণ্যদ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি না করে। এদিকে ঈদকে সামনে রেখে শহরে বেরেছে সীনতাই ও চুরি। তাই পাবনা শহরের সচেতন মহলের দাবি প্রশাসন যেন সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা জোরদার করেন।

আরও পড়ুন

Saturday, September 25, 2021

সর্বশেষ