রাস্তা নয় যেন মৃত্যুর ফাঁদ ভাবনচুরে।

নীলফামারী প্রতিনিধি ll এই হয়তো অনেকের অপরিচিত রাস্তা কিন্তুু নামে নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার ১নংগোলমুন্ডা ইউনিয়নে ৭নং ওয়ার্ড ভাবনচুর বাজার যাওয়ার রাস্তা এটি।অত্র উপজেলা ও পার্শ্ববর্তী ডিমলা উপজেলার চাপানী,ডালিয়ার অধিকাংশ মানুষ জায়গাটা চিনবেন। জলঢাকা থেকে গোলমুন্ডা হয়ে চৌতনের ঘাট ব্রীজ পাড় হয়ে ভাবনচুর বাজার,চর হলদীবাড়ি যাওয়ার রাস্তা। চৌতনের ঘাট থেকে ভাবনচুর বাজার পযর্ন্ত পাশদিয়ে বয়েগেছে ধুমনদী।এছাহাকের জানের পাড় নামক রাস্তার ব্রীজের নিচ দিয়ে বয়ে গেছে উজানের জমি থেকে নেমে আসা পানি নিস্কাশনের নালা। গত পূর্বে প্রবল বৃষ্টির কারনে ও উজানের আবাদী জমির পানি নেমে আশায় রাস্তার বেশির ভাগেই ভেঙ্গে যায় যানচলাচলের বির্ঘন ঘটে।ভাবনচুর চৌতনের ঘাট থেকে ভাবনচুর চরভরট,হলদীবাড়ি মানুষের চলাচলের একমাত্র এই স্হল পথ।এলাকার মানুষের ব্যবসা,বানিজ্যির জন্য জলঢাকা,চাপানীহাট যাওয়ার একমাত্র পথ।চৌতনের ঘাট থেকে ভাবনচুর বাজার পুর্বদিক পযর্ন্ত পুরো রাস্তাটি খালে খন্দকে ভরপুর গাড়ি চলাচলের উপযুগি নয়। অনেক কষ্ট করে চলাচল করতে হয়।।এছাহাকের জানের পাড় নামক স্হানে রাস্তা ভেঙ্গে প্রায় নদীগর্ভে বিলীন এমন করুন অবস্হা যে মরটগাড়ী,চার্জার ভ্যান,অটোভ্যানে, ট্রক্টারটলি,যাওয়া দুরের কথা মোটরসাইকেল ও বাইসাইকেল নিয়ে চলাচল করাটা একদম মরন ফাঁদের মত একটু এদিকে সেদিক হলেই প্রায় ১০০ফিত নিচে পড়ে গিয়ে মৃত্যু ৯০%। এ প্রতিবেদক লেখার কিছুদিন পুর্বে বেশ কয়েকটি ট্রক্টারগাড়ী,চার্জার ভ্যান, অটোরিকশা পড়েগিয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়ে ছিলে এখনো কয়েক জন মেডিকেলে ভর্তি আছে।
এবিষয় কথা হয় বিশিষ্ট কাঠ ব্যাবসায়ী ও সমাজ সেবক মোঃ আমিনুর রহমান জানান, ভাবনচুর বাজার যাওয়ার রাস্তার বেহালদশা, খালে ভরপুর।এমন ভাঙ্গোনের ফলে চলে চলা করা খুবে কঠিন। প্রতি নিয়ত ভ্যান,রিক্সা, ট্র্যাক্টর গাড়ি সহ বিভিন্ন সহ বাহনের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এমনিতে রাস্তা দিয়ে চলাচলের উপযোগী নয়। দুধারে বাশঁ লাগিয়ে দখল করে নিয়েছে এলাকার কিছু স্বাধ্য লোভ মানুষ।এতে করে দুর্ঘটনা ঘটছে। আপনাদের মধ্যমে সরকারের সংশ্লিষ্ট উর্দ্দতম কর্মকর্তা কাছে আবেদন,, হাজার হাজার মানুষের একমাত্র রাস্তাটি পাইলিং এর ব্যাবস্হা করে মাটি ভরাট করে দিলে চলাচলের সুব্যবস্থা হত।ইউনিয়ন কমিনিটি পুলিশিং সভাপতি ও সমাজ সেবক সহিদার রহমান বলেন ব্রীজের নিচে পাশ্বের সমস্ত জমি খাস।
উজানের জমির পানি নিস্কাশনের ব্যাবস্হা যদি রাস্তার পাশদিয়ে না দিয়ে সোজা করে নদীতে পানি নামানো ব্যবস্হা করলে পরবর্তীতে এভাবে রাস্তা ভেংঙ্গে যাবে না।সেই সাথে কিছু ব্যাক্তি রাস্তায় বাশঁ লাগিয়ে রাস্তা দখল করে নিয়েছে।আপনার মাধ্যমে সরকারের উর্দ্দতম কর্মকর্তার কাছে অনুরোধ করছি রাস্তাটি সংস্কার ও বাশঁ গুলো রাস্তা থেকে কেটে নেওয়ার ব্যাবস্হা করার জন্য জানান।

আরও পড়ুন

Sunday, September 26, 2021

সর্বশেষ