বুকের যন্ত্রণা….

বুকের যন্ত্রণা…..
শিমু আকতার

জানিস আজ খুব কষ্ট হচ্ছে,
বুকের ভিতর চিনচিন ব্যাথা হচ্ছে।
মনে হচ্ছে দরজার পাশে দাঁড়িয়ে আছিস তুই ।

এই বুঝি,
হাতছানি দিয়ে আমায় ডাকছিস ?
আজ তোকে খুব মিস করছি ।
জানিনা পাশে থাকলে হয়তো এমনটা হতনা । হয়তো হতেও পারতো!
এর চেয়ে ভয়ানক কিছু।

দিন পেরিয়ে রাতও প্রায় শেষের দিকে।বুকের যন্ত্রণাটা কেবল বেরেই যাচ্ছে, নিশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে !
তুই পাশে থাকলে বলতাম হয়তো,
তুই নেই,
তাই লিখে গেলাম মনের সব কথা।
এই লিখাগুলো যদি কখনো পড়িস।
ভুল করেও দুফুটা চোখের জ্বল ,
যেনো না পরে খেয়াল রাখিস।
তুই চলে যাওয়ার পর থেকেই,
এই নিরব যন্ত্রণাটা, আমায় খুব কাদিয়েছে।
কাছে ছিলি যখন তখনো জল ঝরেছিলো চোখে ।
বুঝতেই পারিস নি তুই,
কি করে বুঝবি বল ?
বৃষ্টি যে খুব প্রিয় ছিলো আমার।
যখন খুব বেশি কষ্ট হতো,
ছুটে যেতাম বৃষ্টির কাছে, বিলিয়ে দিতাম নিজেকে।
বৃষ্টি যে আমায় লুটেপুটে নিয়েছে।

তাই তুই বুঝতেই পারিস নি, ভেবে ছিলি আমি বৃষ্টির সাথে খেলা করছি।
বৃষ্টি আমায় খুব আদর করে,ভালবেসেছিলো।
তাই দুচোখের জ্বলটুকু,
সে আড়াল করেছিলো।

ভালোবাসা বুঝি এমনই হয়?
বৃষ্টির মতো?
সব দূঃখ কষ্ট যন্ত্রণাকে এক নিমিষেই আড়াল করে দিতো।
আচ্ছা এমন করে, ভালবাসতে পারিস নি কেন?
তুই আমাকে।
জানিস আজ আর বৃষ্টি হয় না,
তাই বুকের যন্ত্রণাটা আড়াল ও হয় না।
যন্ত্রণার পাহাড় এতটাই বড় হয়ে গিয়েছিল যে ,

তলিয়ে গিয়েছিলাম।
ভাল থাকিস তুই,
তোর সাথে আমার আরি,
তোকে ছেরে চলে গেলাম দুর পাহারের বাড়ি।………………
…………..শিমু আক্তার

আরও পড়ুন

Wednesday, September 22, 2021

সর্বশেষ