রামগতিতে যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে হত্যা l

রামগতি (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে যৌতুকের জন্য ২ সন্তানের জননী রিজিয়া বেগম (২২) নামের গৃহবধূকে নির্মম নির্যাতনের পর হত্যার অভিযোগ উঠেছে শশুর বাড়ীর লোকজনের বিরুদ্ধে।
রোববার গভীর রাতে চর আলগী ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড চর নেয়ামত এলাকায় পাটওয়ারীগ মোড়ের চৌধুরী মিয়ার বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, ঘটনার দিন রিজিয়ার স্বামী আলাউদ্দিন,শশুর চৌধুরী মিয়াসহ পরিবারের অপরাপর সদস্যরা যৌতুকের জন্য রিজিয়ার উপর নির্মম শারিরীক নির্যাতন চালায়। এতে রিজিয়া গুরুতর আহত হলে তারা ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহের জন্য রিজিয়ার মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে আতœহত্যার নাটক সাজায়। তারা মূমূর্ষ রিজিয়াকে নোয়াখালী সদর হাসপাতাল ভর্তি করে। ভর্তির পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে।
রিজিয়ার সংসারে ৫ বছর বয়সী এক মেয়ে ও ২ বছর বয়সী এক ছেলে রয়েছে।
হতভাগ্য গৃহবধূর স্বজনরা জানান, দ্বীর্ঘদিন থেকে স্বামী, শশুর ও তাদের পরিবারের লোকজন যৌতুকের জন্য তাকে প্রায়ই নির্যাতন করতো। এ নিয়ে রিজিয়া ও তার ভাই সুলতান বাদী হয়ে আদালতে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। মামলা আদালতে চলমান রয়েছে।
রিজিয়া হত্যার ঘটনার প্রেক্ষিতে তার ভাই মনির হোসেন বাদী হয়ে রামগতি থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে তিনি জানান। তিনি আরো বলেন আমার বোনকে যৌতুকের জন্য তার শশুর বাড়ীর লোকজন প্রায়ই নির্যাতন করতো, আমরা এ পর্যন্ত টাকা, আসবাবপত্র অনেক কিছু দিয়েছি। ওদের জ¦ালায় রিজিয়া বেশীরভাগ সময় আমাদের বাড়ীতে তার স্বামী-সন্তানসহ থাকতো। শশুর বাড়ীতে নতুন ঘর করতে অনেক সহায়তা করেছি তবুও ওরা আমার বোনকে বাঁচতে দিলোনা। তাদের নির্যাতনের চিহ্ন আমার বোনের শরীরে রয়েছে। আমি আমার বোন হত্যার বিচার চাই।
তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের ইউপি সদস্য সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমার এলাকার মেয়ে রিজিয়াকে তার শশুর বাড়ীর লোকজন প্রায়ই যৌতুকের জন্য নির্যাতন করতো। সর্বশেষ তারা তাকে নির্মম নির্যাতন করে হত্যা করে। হাসপাতালে দেখেছি লাশের গায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
থানা অফিসার ইনচার্জ এটিএম আরিচুল হক জানান, অভিযোগ পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

আরও পড়ুন

Sunday, September 19, 2021

সর্বশেষ