যেখানেই ভাঙন, সেখানেই বাঁধ – মেজর (অবঃ) মান্নান

আমজাদ হোসেন আমু,কমলনগর (লক্ষ্মীপুর): মেঘনার তীব্র ভাঙনে বিলীন হচ্ছে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলা। দীর্ঘ তিন যুগেরও বেশি সময় ধরে ভাঙছে মেঘনা। এ ভাঙনে জর্জরিত উপজেলা হাজার হাজার মানুষ।
ভাঙন পর্যবেক্ষন উপলক্ষে  কমলনগর- রামগতি বাচাঁও মঞ্চের আয়োজনে বিকল্পধারার মহাসচিব লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি-কমলনগর) আসনের এমপি মেজর (অব.) আবদুল মান্নান বলেন, কমলনগর উপজেলার এক ইঞ্চি জমিও আর নদীতে ভাঙতে দেওয়া হবে না। ভাঙন প্রতিরোধে ৩২ কিলোমিটার তীর রক্ষা বাঁধ নির্মাণ করা হবে। যেখানে-ই ভাঙন, সেখানেই বাঁধ হবে।
এছাড়াও আগামী নভেম্বর থেকে বাঁধের নির্মাণকাজ শুরু হবে। ৪/৫টি পয়েন্টে সেনাবাহিনী দিয়ে ভাঙন রোধে কাজ করা হবে।
বুধবার (১৪ আগস্ট) সন্ধ্যায় উপজেলার ফলকন নদী ভাঙন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ শেষে লুধূয়া ঈদগাঁ মাঠ ও হাজিরহাট বাজারে সংক্ষিপ্ত পথ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, যেকোনো মূল্যে নদী ভাঙন থেকে কমলনগরকে রক্ষা করা হবে। নদী শাসন করা কঠিন কোনো কাজ নয়। সরকার ভাঙন প্রতিরোধে আন্তরিক। বিশ্বের বিভিন্ন উন্নত দেশের মতো বাংলাদেশও নদীশাসন করতে সক্ষম। ভাঙন থেকে রক্ষায় সরকার পর্যাপ্ত বরাদ্দ দেবে। বর্ষা মৌসুম হওয়ায় এখন মেঘনার বিভিন্ন অংশে ভাঙন শুরু হয়েছে। সাময়িকভাবে ভাঙন ঠেকাতে কাজ চলছে। ভাঙনকবলিত স্থানে বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং করা হচ্ছে। বর্ষা শেষেই চূড়ান্তভাবে নদীশাসনের কাজ শুরু হবে। তীররক্ষা বাঁধ নির্মাণ হবে। ভাঙন থেকে দুই উপজেলা রক্ষা পাবে। সে লক্ষ্যে কাজ করা হচ্ছে।
আরও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাহ্ উদ্দিন আহমেদ বাপ্পী,ভাইস চেয়ারম্যান ওমর ফারুক সাগর, কেন্দ্রীয় আ,লীগের সহ সম্পাদক আবদুজ্জাহের সাজু, আ,লীগের সভাপতি নুরুল আমিন মাষ্টার , প্রেসক্লাব সভাপতি সাজ্জাদ রহমান,  বাচাঁও মঞ্চের আহবায়ক এড.আবদুস সাত্তার পালোয়ান সহ প্রমুখ।
সারা বছর ধরে রামগতি-কমলনগর মেঘনার ভাঙনে কবলিত। বর্ষা মৌসুমে ভাঙন ভয়াবহ রূপ নেয়। গত কয়েক বছরের ভাঙনে হাজার হাজার পরিবার নিঃস্ব হয়েছে। বিলীন হয়ে গেছে ফসলি জমি, রাস্তা-ঘাট, হাট-বাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র। বর্তমানে হুমকির মুখে রয়েছে কমলনগর উপজেলা কমপ্লেক্সসহ বহু সরকারি-বেসরকারি স্থাপনা।
প্রয়াস নিউজ / টি2

আরও পড়ুন

Friday, September 24, 2021

সর্বশেষ