কমর উদ্দিন মসজিদের মুয়াজ্জিন ফিরোজের ভুমিদস্যুতায় জনমনে ক্ষোভ

ভোলা প্রতিনিধি :,
মোঃ ফিরোজ মাতাব্বর। দীর্ঘ দিন যাবৎ তিনি মসজিদের মুয়াজ্জিন পেশায় নিয়োজিত থেকে ধর্মীয় সেবা দিয়ে আসছেন। এদের প্রতি মানুষের শ্রদ্ধা কিংবা সহমর্মিতা কোন ভাবেই কম নয়। ধর্মীয় মুল্যবোধের লেবাছের অন্তরালে এদের মত ব্যক্তিই যদি আবার ইসলাম বিদ্বেষী কাজে লিপ্ত থাকে তাহলে ঘৃনা, ধিক্কার, আলোচনা ও সমালোচনারও শেষ থাকেনা। অপ্রিয় হলেও সত্য যে এমন একটি ঘটনার নায়ক মোয়াজ্জিন ফিরোজ। বর্তমানে তিনি ভ চরফ্যাশন আঞ্চলিক সড়কের পাশে অবস্থিত কমর উদ্দিন বাজার জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন হিসেবে কর্মরত আছেন। মুয়াজ্জিন ফিরোজ মাতাব্বরের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ পাওয়া গেছে।জানাগেছে, ভোলা সদর উপজেলার উত্তর দিঘলদী ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের মাতাব্বর বাড়ির বারেক মাতাব্বরের ছেলে ফিরোজ দীর্ঘ বছর যাবত খাশের হাট জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।সেখানে থাকা অবস্থায় মসজিদের অর্থ অাত্মসাতের অভিযোগে তাকে চাকুরীচ্যুতি করা হয়েছে। অন্যদিকে ফিরোজ পিতা তার মৃত্যুর পর ওয়ারিশ ভাই ও বোনদের সম্পত্তি না দিয়ে প্রতারনার মাধ্যমে জমির দলিল সম্পাদন করে তা আত্মসাত করেছে। তার বড় ভাই ফারুক দীর্ঘ দিন ঢাকায় থাকার সুবাদে তার পাওনা জমি ফিরোজ তার নিজের নামে নামজারি ও পর্চা কর্তন করে জমি দখলে নিয়েছে। এসবের প্রতিবাদ করতে গেলে বড় ভাই ফারুককে দা লাঠি নিয়ে ধাওয়া করে বাড়ি ছাড়া করে। কয়েকদিন পর বাড়িতে ঘর তুলতে গেলে ফারুকের স্ত্রীকে ফিরোজ ও তার ছেলে জোবায়ের মিলে চুলের মুষ্টি ধরে ব্যাপক কিল ঘোষি লাথি মেরে। এলোপাতারি ভাবে মারধর করায় মারাত্মক আহত হয়েছে ফারুকের স্ত্রী । ওই ঘটনায় আদালতে মামলা হয়েছে।ওই মামলা তুলে নিতে বাদি রহিমাকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিচ্ছে ফিরোজ।
অপরদিকে ফিরোজেরর বড় বোন সুলতানা রাজিয়ার কিছু জমি ছোট ভাই খোকনের কাছে বিক্রির সময়ে অতিরিক্ত ৬ শতাং জমি প্রতারনার মাধ্যমে কৌশলে তার নামে দলিল করে নেয়। বিষয়টি জানতে পেরে বোন রাজিয়া ফিরোজ কে চাপ দিলে সে জমি ফেরত দিবে নতুবা সমমুল্যের টাকা দেয়ার অঙ্গী কার করে। কিন্তু ঘটনার কয়েকবছর অতিবাহিত হলেও জমিও ফেরত দেয়নি, টাকাও দেয়নি। তার কাছে জমির ফয়সালা চাইলে সে নানান তালবাহানা করে আসছে। বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান লিয়াত হোসেন মনসুর মিয়াকে অবগত করেন ভুক্তভোগী বোন রাজিয়া সুলতানা। চেয়ারম্যান বোনের জমি ফেরত দেয়া কিংবা মুল্য পরিশোধ করে ফয়সালার কথা বললেও চেয়ারম্যানকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে এখন পর্যন্ত কোন সমাধান করেনি প্রতারক ফিরোজ। এদিকে বাড়ির জমির বাহিরে অন্যান্য জমির বেশির ভাগ অংশের জমি ফিরোজ তার নামে পর্চা করে নিয়েছে। ফিরোজের প্রতরনার কারনে ভাই বোনসহএলাকার বহু মানুষ জিম্মি। মসজিদের মুসল্লীরা ফিরোজের ভুমিদস্যুতার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

আরও পড়ুন

Wednesday, September 22, 2021

সর্বশেষ