ভোলায় চেয়ারম্যানের রোষানলে সাংবাদিক -ইউপি সদস্য ও জনগণ

ভোলা প্রতিনিধিঃ-

ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান ওরফে জলদস্যু মিজান খার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিক ফরিদুল ইসলামকে প্রকাশ্যে চোখ উপরে ফেলার চেষ্টা চালিয়েছে চেয়ারম্যানের ক্যাডার সাদ্দাম। সে রাজাপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের ওহাব আলীর ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার ৩০ নভেম্বর রাত ১০ টার সময় ভোলা নতুন বাজার সমবায় মার্কেটের নিচে। এ ঘটনায় সাংবাদিক সমাজের মাজে ক্ষোভ বিরাজ করছে।
সাংবাদিক ফরিদুল ইসলাম জানায়,গত কয়েকদিন যাবৎ রাজাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিজান খার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী তান্ডব,সরকার কর্তৃক বরাদ্দকৃত ঘর দেয়ার নামে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে টাকা আদায়, টিউবওয়েল দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেয়া এবং শতাধিক নারীকে জোরপূর্বক তালাক দিয়ে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎসহ সুনির্দিষ্ট অসংখ্য অভিযোগের বিষয়ে ভুক্তভোগীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অনলাইন ও পত্রপত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে তার পালিত ক্যাডার সাদ্দাম, নাছির সর্দার ও মাইন উদ্দিনসহ একদল সন্ত্রাসী আমার উপরে লেলিয়ে দেয়।এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার রাতে তার ক্যাডার সাদ্দাম আমার উপর হামলার চেষ্টা চালায়।
এদিকে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে যারা অভিযোগ করেছেন তাদেরকে ও আমাকে জড়িয়ে গত বৃহস্পতিবার চেয়ারম্যান মিজান খা রন্জন আলীকে কৌশলে বাদী বানিয়ে আদালতে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী শুরু করেছে। ওই মামলায় বি বি সি বাংলা টিভি ভোলা জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক ফরিদুল ইসলাম, ইউপি সদস্য ছালেম, ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক ইউসুফকে আসামি করা হয়েছে। এ ঘটনায় মিজান খা ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।

আরও পড়ুন

Tuesday, January 18, 2022

সর্বশেষ