দৌলতখানে একটি ভুমিদস্য গ্রুপের সন্ত্রাসী তান্ডব চলছেই

ভোলা প্রতিনিধিঃ-

দৌলতখান উপজেলার চরখলিফা ইউনিয়নের দিদারউল্লাহ গ্রামের ৫ নং ওয়ার্ডের মিজি বাড়ির ভুমিদস্যু রশিদ গ্রুপের একের পর এক তান্ডব চলছেই। কোন কিছুতেই পরোয়া করছেনা রশিদ।একই এলাকার মোসলেমের ছেলে মন্নান ও আঃ বারেকের ছেলে জাকির হোসেন জানায়,দিদারউল্লাহ মৌজার কালা পোল সংলগ্ন ৫২ নং খতিয়ানের এক একর ৩০ শতাংশ জমির মধ্য থেকে বিক্রয় বাদে ওয়ারিশ সুত্রে তারা ৪ জনে ৩৮ শতাংশ জমির মালিক। আর রশিদ একই খতিয়ানে খরিদ সুত্রে ৫০ শতাংশ জমির মালিক। রশিদ ৫০ শতাংশ জমির মালিক থাকলেও জোরপুর্বক ৩০ শতাংশ জমি দীর্ঘ বছর ধরে ভোগ দখল চাষাবাদ করছে। এ নিয়ে রশিদ কাগজপত্রের তোয়াক্কা না করে ওই জমি দখলে রাখে। ফলে তার সাথে আমাদের প্রতিনিয়ত বাকবিতণ্ডা চলেই আসছে।
একপর্যায়ে ওই জমি নিয়ে দৌলতখান থানায় ও মিয়ারহাট বাজারে দুপক্ষের আমিনসহ দুটি শালিশ মিমাংসা হয়। সকল কাগজপত্রের পর্যালোচনায় আমারা জমি পাওনা বলে সিদ্দান্ত হয় সালিসে। কিন্তু ভুমিদস্যু রশিদ গ্রুপ সালিশ মিমাংসা অমান্য করে আদালতে মামলা দিয়ে হয়রানী করতে থাকে। বর্তমানে ইউনিয়ন পরিষেদও শালিস মিমাংসা চলমান আছে। জাকির ও মন্নান আরো জানায়,স্থানীয় সকল সালিসে যখন আমাদের কাগজপত্র সঠিক বলে প্রমান হওয়ার পর গত ৪/৯/২০১৯ ইং তারিখে আমাদের জমিতে সীমানা নির্ধারন করে টিনসেট ঘর তুলে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস শুরু করেছি।
এরই মধ্যে ভমিদস্যু রশিদের নেতৃত্বে তার ভাতিজা হাসেম,শহিদুল,আব্দুল্লাহ,ইলিয়াছ,মাইনুদ্দিন,আরশাদ,ছলেমান ও ফরিদসহ একদল সন্ত্রাসী নিয়ে ওই জমি থেকে উচ্ছেদ এবং ঘর ভাংচুেরর চেষ্টা চালায়। এসম তারা ব্যাপক তান্ডব ও লুটপাট চালায় এবং নারী ও শিশুদের উপর নির্যাতন চালায়। এ ঘটনায় ২৭ /১০/২০১৯ ইং তারিখে দৌলতখান থানায় রশিদ গ্রুপের বিরুদ্ধে মামলা হলে সে মিথ্যা নাটক সাজিয়ে স্থানীয় একটি কুচক্রী মহলের ইন্দনে আমাদের নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছেন। তবে বিরোধ নিস্পত্তির জন্য ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদি হাসান মুকু উভয় পক্ষকে ডেকে উদ্দোগ গ্রহন করেছেন বলে জানাগেছে।
এদিকে ভুমিদস্যু রশিদ গ্রুপ এখনো জমি জবর দখল এবং ঘর থেকে উচ্ছেদের জন্য নানান ভাবে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে পায়তারা চালাচ্ছে এবং প্রাণনাশেরর হুমকি দিচ্ছে বলে ভুক্তভোগী মন্নান ও জাকির হোসেন জানান। তারা এখন রশিদ গ্রুপের ভয়ে চরম আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন।ভুমিদস্যু রশিদ গ্রুপের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।

আরও পড়ুন

Friday, January 21, 2022

সর্বশেষ