শাহাজানের ক্ষমতায় অসহায় পৌরবাসী, রামগতি পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে অর্থ আত্তসাতের অভিযোগ

রামগতি (লক্ষীপুর) প্রতিনিধি :লক্ষীপুরের রামগতি পৌর মেয়র এম মেজবাহ উদ্দিনের বিরুদ্ধে নাগরিকদের ট্যাক্স-ফি, উন্নয়ন কর, রোলার ভাড়া, জেলেদের কাছ থেকে ভূয়া হোল্ডিং ট্যাক্স আদায়, গৃহ বা বহুতল ইমারত নির্মাণে আদায়কৃত অর্থ, বিলবোর্ড ট্যাক্স, আপ্যায়নের নামে ভূয়া ভাউচারে অর্থ আতœসাত. ৩য় শ্রেণীর কর্মচারী শাহাজানের দৌরাতœ, একই ব্যাক্তি সচিব ও ইঞ্জিনিয়ার দায়িত্ব পালন, স্বনামে বেনামে বিভিন্ন প্রকল্প আতœসাতসহ নানান অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।
জানা যায়, পৌর মেয়র মেজবাহ উদ্দিন নাগরিকদের দেয়া নাগরিক সনদ, জন্ম-মৃত্যু সনদ, ব্যবসায়িক ট্রেড লাইসেন্স, জন্ম-মৃত্যু সনদ, রোলার ভাড়ার টাকা, গৃহ বা বহুতল ইমারত নির্মাণে কর হিসেবে আদায়কৃত অর্থ, বিলবোর্ড ট্যাক্স, পৌরসভায় কোন হোল্ডিং নেই সেই জেলেদের কাছ ভূয়া হোল্ডিং ট্যাক্সের নামে আদায়কৃত অর্থ, ওয়ারিশ সনদ থেকে প্রাপ্ত অর্থ তিনি তার সহযোগী ৩য় শ্রেণীর কর্মচারী শাহাজানের যোগসাজসে আতœসাত করেন। শাহাজান নিজেকে কখনো সচিব আবার কখনো ইঞ্জিনিয়ার পরিচয় দেন। এছাড়া পৌরসভার দৈনিক খরচ বা মাসিক সাধারন সভার আপ্যায়ন বিল ভূয়া ভাউচার, একই সড়ক একবার আহাম্মদীয়া সড়ক আবার মেয়র রোড নামে কয়েকবার বরাদ্দ দেন, কিল্লা রোডে একই কায়দায় লুট করেন, ৫ নং ওয়ার্ডে ওলি হাওলাদার সড়কে গাইডওয়াল, ৮ নং ওয়ার্ড তাজল ওসি বাড়ীর সামনে ও আক্কু পাটওয়ারী বাড়ীর সড়কে গাইডওয়াল নির্মাণে করেছেন পুকুর চুরি এছাড়া বিভিন্ন প্রকল্প আতœসাত করার অভিযোগ রয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন কাউন্সিলর ও পৌরকর্মচারী জানান, কাউন্সিলররা প্রায় ১০ মাসের সম্মানীভাতা এবং কর্মচারীদের ৮ মাসের বেতন বকেয়া থাকার ফলে তারা মানবেতর দিন কাটাচ্ছে।
এ দিকে পৌরসভায় কোন সচিব ও প্রকৌশলী না থাকায় আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে রায়পুর পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী জুলফিকার আলী রামগতি পৌরসভার সচিব এবং প্রকৌশলীর দুটি দায়িত্ব মেয়রের বদৌলতে একাই পালন করছেন জানা যায়। মেয়র মেজুর এ সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ৮ কোটি টাকার টেন্ডার জালিয়াতির অভিযোগ করেন কয়েক ঠিকাদার।
এসব বিষয়ে জানতে কার্যসহকারী শাহাজানের ফোনে কল করলে তিনি ফোন ধরেননি।
অনিয়ম দূর্নীতি অর্থ আতœসাতের বিষয়ে মেয়র মেজবাহ উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি ব্যস্ত আছেন বলে এড়িয়ে যান।
সচেতন নাগরিক সমাজ মেয়র সিন্ডিকেটের অনিয়ম, দুর্নীতি, টেন্ডার জালিয়াতি ও অর্থ আতœসাতের উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানায়।

আরও পড়ুন

Tuesday, September 21, 2021

সর্বশেষ