হামলায় দুই মুক্তিযোদ্ধাসহ সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি আহত, রামগতির ২ অমুক্তিযোদ্ধা জামুকার তদন্তের মুখোমুখি।

রামগতি (লক্ষীপুর) প্রতিনিধি :লক্ষীপুরের রামগতিতে সরকার দলের প্রভাবশালী দুই নেতার মুক্তিযোদ্ধা সনদ জালিয়াতির বিষয়ে জামুকার তদন্ত শেষে ভবনের গেইটে বাদী পক্ষের উপর হামলায় দুজন মুক্তিযোদ্ধাসহ উপজেলা ছাত্রলীগ সাবেক সভাপতি আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
ঘটনা পর নোয়াখালী ই জোন এফ এফ কমান্ডার আবুল কালাম মো: আজাদ উদ্দিন আজাদ মিয়ার মেয়ে নাহিদা ফরিদা মুনমুন বাদী হয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের পল্টন থানায় সাধারন ডায়েরী করেন। জিডি নং- ১৪৯৫ তারিখ : ২১/০১/২০২০ ইং।
তিনি ডায়েরীতে উল্লেখ করেন, মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারী) সাবেক এমপি মোহাম্মদ আবদুল্যাহ আল মামুন ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক আবদুল ওয়াহেদের বিরুদ্ধে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির পক্ষে নাহিদা ফরিদা মুনমুনের দায়ের করা জাল মুক্তিযোদ্ধা সনদ লাভের অভিযোগের শুনানীর দিন ধার্য্য ছিলো। দুই নেতা জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) মুক্তিযোদ্ধা তদন্ত কমিটির কার্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ খ ম মোজাম্মেল হক এর সামনে হাজির হন। জামুকার তদন্ত শেষে আবদুল্যাহ আল মামুন ও আবদুল ওয়াহেদসহ বেশ কয়েকজন লোক কাকরাইল জামুকার কার্যালয়ের নীচ তলায় স্কাউট ভবনের গেইটে বাদী ও স্বাক্ষীদের উপর অতর্কিত হামলা করেন। তাদের বেধড়ক মারধরে মুক্তিযোদ্ধা আবদুজজাহের, মুক্তিযোদ্ধা নিজাম উদ্দিন ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি যুদ্ধকালীন বিএলএফ রামগতি কমান্ডার হাসান মাহমুদ ফেরদৌসের ছোট ভাই হাসান মের্শেদ গুরুতর আহত হন।
মুনমুন জানায় জাল সনদ ফাঁস হয়ে যাওয়ার ভয়ে তারা এখন হামলা মামলার পথ বেছে নিয়েছে। হামলায় আহতরা বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আমরা ন্যায় বিচার চাই।
এ দিকে মুক্তিযোদ্ধাদের উপর হামলার ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধারা, তাদের প্রজন্ম, বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে দায়ীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবী করেন।

আরও পড়ুন

Wednesday, September 22, 2021

সর্বশেষ