জলঢাকায় স্ত্রীর ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তথা-কথিত সাংবাদিক রবিউল ইসলাম রাজ। 

নীলফামারী প্রতিনিধিঃ নীলফামারীর জলঢাকায় প্রেমিকাকে বাড়ি থেকে ডেকে এনে বিয়ে করে এবং যৌতুকের দাবিতে পরিবারের লোক দিয়ে স্ত্রীকে নির্যাতন করে তথা কথিত সাংবাদিক রবিউল ইসলাম রাজ। নির্যাতিতা স্ত্রী বর্না আক্তার (২০) বাদী হয়ে থানায় ও কোর্টে ওভিযোগ দায়ের করেন। সেই মামলার ভয়ে প্রায় দু মাস ধরে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তথা কথিত সাংবাদিক রবিউল ইসলাম রাজ। পার্শ্ববর্তী ডোমার উপজেলার মির্জাগঞ্জ এলাকার দুলাল হোসেনের মেয়ে বর্না আক্তার জানায়, দীর্ঘ সাড়ে তিন বছর ধরে প্রেম ও শারীরিক সম্পর্ক করার পর রবিউল আমাকে গত ১১ আগষ্ট বাড়ি থেকে ডেকে এনে তার পরের দিন পৌর এলাকার রাজার হাট আব্দুল হালিম কাজির অফিসে ৫ লক্ষ ৫০ হাজার ৫ শত ৫ টাকা দেন মোহরে আমাকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর উপজেলার কৈমারী ইউনিয়নের গাবরোল সরকার পাড়া এলাকায় শ্বশুর বাড়িতে নিয়ে আসলে। রবিউলের বাবা অহিদুল ইসলাম সহ তার পরিবারের লোকজনরা যৌতুকের জন্য শারীরিক নির্যাতন করে ও বাড়ি থেকে বের করে দেয়। পরে আমি উপায় না পেয়ে জলঢাকা থানা ও কোর্টে অভিযোগ দায়ের করি। সেই থেকে আমার স্বামী রবিউল যে কোথায় পালিয়ে গেলো আমি তাকে খুঁজে পাচ্ছিনা। ওর মোবাইল ফোনও বন্ধ। রবিউলের চাচাতো ভাই দুদুল জানান, রবিউল দীর্ঘ দিন থেকে বাড়িতে আসেনা কোথায় যে গেছে আমরা জানিনা। উল্লেখ্য রবিউল নিজেকে একজন সরকারি কর্মকর্তা ও বিভিন্ন উচ্চ পদীয় ব্যাক্তি পরিচয় দিয়ে একাধিক মেয়ের সাথে প্রতারণা করেছেন বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন

Wednesday, December 8, 2021

সর্বশেষ