রাঙামাটি উপজেলার গুলশাখালী ইউনিয়নে নৌকার কান্ডারি হতে চান আব্দুল মালেক। 

নিজস্ব প্রতিবেদক।।রাঙামাটি উপজেলার ৩ নং গুলশাখালী ইউনিয়নে জনগণের প্রত্যাশা পূরণে অত্র ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা , বিশিষ্ট সমাজসেবক, শিক্ষানুরাগী, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক দল-মত-নির্বিশেষে সকলের আস্থাভাজন আওয়ামীলীগের নৌকার প্রতীকে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী মোঃ আব্দুল মালেক কে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় ইউনিয়নবাসী।
নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চায়ের দোকান থেকে শুরু করে পাড়া মহল্লায় সর্বত্র এখন নির্বাচনী আমেজ। দলমত নির্বিশেষে ইউনিয়নের ভোটারদের মুখে মুখে তার নাম শোনা যায়। ইউনিয়নের প্রত্যেকটি ওয়ার্ডের সর্বস্তরের জনসাধারণ দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে রয়েছে তার সু সম্পর্ক। তিনি এলাকার উন্নয়নে ইউনিয়ন বাসী সহ সকলের দোয়া, সহযোগিতা ও পরামর্শ চেয়েছেন। স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতামূলক কাজ করে দলমত নির্বিশেষে তিনি সর্ববৃতহ এই ইউনিয়ন মধ্যে আস্থা অর্জন করেছেন।

এলাকার একাধিক প্রবীণ ত্যাগী আওয়ামীলীগ কর্মীরা বলেন, আব্দুল মালেক একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, তার পরিবারের সবাই আওয়ামীলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আমরা তার মধ্যে আগামীর ভবিষ্যৎ দেখতে পাই তাকে গুলশাখালী ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দিলে তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে নিজেকে উৎসর্গ করবেন আমাদের বিশ্বাস।
জানা যায়,,করোনাকালিন সময়ে নিজ অর্থায়নে সাহায্য সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন এবং শীতার্তদের মাঝে গোপনে কম্বল বিতরন ও সাহায্য সহযোগীতা অব্যাহত রেখেছিলেন। তিনি মসজিদ মাদ্রসা ও ধর্মীয় কাজে ও গরিব দুঃখি অসহায় পরিবারের মাঝে গোপনে মেয়ের বিয়েতে সাহায্য সহযোগিতা করেন। তিনি ছাত্র জীবন থেকে ছাত্রলীগ ও আওয়ামী রাজনীতির সাথে নিজেকে অব্যাহত রেখেছেন সুনামের সহিত।
তার নিজ অর্থায়নে এলাকার দরিদ্র ও অসহায় মানুষকে আর্থিক সাহায্য প্রদান করেছেন।
সাধারণ মানুষের সেবা ও তরুনদের কে খেলাধুলার প্রতি আগ্রহী জাগাতে নিজ উদ্যোগে এলাকায় স্বপ্নচুরা স্পোটিং ক্লাব নামে একটি সংগঠন করে তুলেছেন।

এমনকি একাধিক নতুন ভোটার বলেন, আমাদের তরুণদের মালেক ভাই। আমরা মনে করি মোঃ আব্দুল মালেক ভাই কে আওয়ামীলীগ থেকে এবারের নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন দিলে তিনি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবেন।

সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে আব্দুল মালেক জানান , দীর্ঘদিন ধরে তিনি দলের জন্য কাজ করে চলেছেন। আওয়ামী লীগের চরম দুঃসময়ে বিএনপি জামায়াত জোট সরকারের সময়ে দলের দূর্দিনে সংগঠনকে সুসংগঠিত করা জোট সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে হামলা, মামলা নির্যাতনের শিকার হয়েছি। তবু কখনো পিছুপা হইনি।
সবকিছু বিবেচনা করে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দল তাকে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দিয়েছেন। তিনি নির্বাচিত হলে ইউনিয়নবাসীর পাশে থেকে তাদের বিভিন্ন সরকারি সাহায্য ও সরকারী সেবা ইউনিয়নবাসীর দ্বারপ্রান্তে পৌছে দিবেন এবং গরীব অসহায় মানুষের পাশে থেকে উন্নয়ন কর্মকান্ড চালিয়ে যাবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি নিজ ইউনিয়নবাসীসহ সর্বস্তরের জনগনের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

আরও পড়ুন

Monday, November 29, 2021

সর্বশেষ