মসজিদের জমি দখলের অভিযোগে লক্ষ্মীপুরে মুসুল্লিদের মানববন্ধন। 

মোঃ আরিফ হোসেন, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি : অদ্য ২১/১০/২১ইং, রোজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১ ঘটিকায় মসজিদের জমি দখল করার অভিযোগে মানববন্ধন করেন লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের আবিরনগর(এনায়েতপুর) জামে মসজিদের মুতাওয়াল্লি কমিটি ও এলাকা বাসি।

উক্ত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মুতাওয়াল্লী পরিবার সভাপতি হাফেজ মাওলানা আবুল হাসানাত।তিনি বলেন,আমরা আজকে এখানে উপস্থিত হয়েছি মসজিদের জমি জবর-দখল, আদালতের রুল উপেক্ষা করে মসজিদের ওয়াকফ জমিতে জোর-জবরদস্তিমূলক ভবন নির্মাণ,বেআইনি কতৃত্ব ও ক্ষমতা প্রয়োগ করে ওয়াকফ মুতাওয়াল্লী ও তার গঠিত কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা, মুতওয়াল্লী কতৃক নিয়োগকৃত খতিব, ইমাম ও মুয়াজ্জিন কে অন্যায় ভাবে বাদ দেওয়া এবং এলাকায় শান্তি-শৃঙ্খলা বৃনষ্ট করনের প্রতিবাদে মানববন্ধনে প্রতিবাদ জানাতে।

তিনি আরো বলেন,আমাদের অত্র মসজিদ খানা ১৯৩৬ইং সনের ২৭৮৬ নং ওয়াকফ মূলে সম্পূর্ণ মুতওয়াল্লী পরিচালিত একটি ওয়াকফ প্রতিষ্ঠান। দাতা ও প্রতিষ্ঠাতা অত্র ও প্রতিষ্ঠাতা অত্র মসজিদ পরিচালনার জন্য তার উত্তরসূরীগনকে উক্ত দলিলের মাধ্যমে ২৫ডিং জমি ওয়াকফ লিল্লাহ করে মুতাওয়াল্লী নির্ধারন করে দেন।আরো ৮৬ডিং জমি প্রদান পূর্বক এই জমি থেকে ফসল ফলিয়ে মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন, খাদেমের সম্মানী, মসজিদের তেল, চাটাই ইত্যাদি অর্থাৎ রক্ষনা-বেক্ষনের দায়িত্ব প্রদান করেন।

মুতওয়াল্লী আবদুল কাদের আরো জানান, বিগত আরএস জরিপের সময় স্থানীয় একটি চক্র উক্ত ওয়াকফ দলিল গোফন করে সিএস এবং এসএ এবং এসএ উভয় জরিপে মসজিদের নামে রেকর্ডভুক্ত ২৫ডিং জমি থেকে ১৪ ডিং জমি পার্শ্ববর্তী মাদরাসার নামে রেকর্ডভুক্ত করে নেয়।গতবছর মাদরাসা কমিটি মসজিদের ইদগাহ মাঠ জবর দখল করে মসজিদের পূর্ব পাশে মসজিদকে রাস্তা থেকে সম্পূর্ণ আলাদা করে মাদরাসার একটি ভবন করতে উঠে পড়ে লাগে।এতে আমরা মুতওয়াল্লী পরিবার বাধা প্রদান করি এবং রেকর্ড সংশোধনের জন্য এলএসটি কোর্টে পিটিশন দায়ের করি।তারপর ও ঐ চক্রটি উক্ত ভবন নির্মাণের চেষ্টা করে।এতে আমরা সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞার পিটিশন দায়ের করি।আদালত বিবাদী পক্ষ কে “কোন অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হবে না” এ মর্মে রূল জারি করে।এরপর রূল নিষ্পত্তির শুনানিকালে সেই অসাধু চক্রটি বিশেষ ক্ষমতাবান লোকদের সহযোগিতায় অন্যায়ভাবে মসজিদে দাঁড়িয়ে একটি কাউন্টার কমিটি ঘোষণা করে এবং তারা নিজেদেরকে কমিটি দাবি করে মসজিদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট মামলা পরিচালনা করবেনা এমর্মে আদালতে একটি আবেদন দাখিল করে।

উক্ত জবর-দখলের বিরুদ্ধে আমরা সকল কতৃপক্ষেরই দারস্থ হয়েছি।অথচ এর কোনো প্রতিকার পাইনি।বরং উল্টা হুমকি ধামকির মুখোমুখি হয়েছি।তাই আজকে আমরা এখানে মানববন্ধন করতে বাধ্য হয়েছি। আমরা এর আইনি প্রতিকার চাই।

আরও পড়ুন

Monday, November 29, 2021

সর্বশেষ