সরকারি নীতিমালা উপেক্ষা করে হাজিরহাট বাজার কমিটির নির্বাচনে ব্যবসায়ী ও ঘর মালিকদের ক্ষোভ।

নিজস্ব প্রতিবেদক  : সরকারি নীতিমালা উপক্ষো করে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলা সদর হাজিরহাট বাজার কমিটির নির্বাচনের আয়োজন করার অভিযোগ উঠেছে। নির্বাচনকে সামনে রেখে গঠন করা হয়েছে নির্বাচন কমিশন। ভোটার হাল নাগাদ করতে করেছে মাইকিং ও বিতরণ করেছে লিপলেট । তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান বলেন সরকারি বিধিমালা বাহিরে গিয়ে নির্বাচন করার কোন সুযোগ নেই।

এ দিকে নির্বাচিত বাজার ব্যাবস্থাপনা কমিটির কাউকে না জানিয়ে কমিটি বিলুপ্ত করে এ নির্বাচন আয়োজন করায় কমিটির নেতা, বাজার ব্যবসায়ী ও ঘর মালিকদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দেয়। সরকারি নীতিমালা অনুসরণ করে বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটি নির্বাচনের দাবী জানান ব্যবসায়ী ও ঘর মালিকরা। কিন্তু এ নীতিমালা উপেক্ষা করে হাজিরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন হাজিরহাট বাজার পরিচালনা কমিটি নামে মনগড়া একটি নির্বাচনের আয়োজন করছেন। গঠন করেছেন নির্বাচন কমিশন। এর আগে ১৮ নভেম্বর নির্বাচিত কমিটিকে অবগত না করে বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটি বিলুপ্ত করে।

গত ২০ নভেম্বর হাজিরহাট ইউনিয়ন প্যাডে নিজাম উদ্দিন তাকে হাজিরহাট বাজার পরিচালনা কমিটির প্রধান উপদেষ্টা পরিচয় দিয়ে ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি নির্বাচন কমিশন গঠন করেন। সে নির্বাচন কমিশন ভোটার ফরম বিতরণ ও জমা, খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ, চুড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশের তারিখ নির্ধারণ করে বাজারে মাইকিং করে। ওই নির্বাচন কমিশন ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে নির্বাচন ঘোষণা দেন। আগামি সপ্তাহে তফসিল ঘোষণা হবে বলে জানা গেছে।

হাট ও বাজার বিধিমালা ২০১৮ এর বিধি ১৬(২) থেকে জানা যায়, হাট বাজার দৈনন্দিন পরিচালনা, উন্নয়ন ও রক্ষণাবেক্ষনসহ সকল কার্যাবলী পর্যালোচনার জন্য প্রতিটি হাট বাজার পর্যায়ে একটি হাট বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠন করিতে হইবে। ওই কমিটিতে সংশ্লিষ্ঠ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সভাপতি হবেন। সদস্য হবেন সংশ্লিষ্ঠ ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য, সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের ভুমি কর্মকর্তা, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে মহিলা দোকানের মনোনীত প্রতিনিধি, উপজেলা প্রকৌশলী দপ্তরে কমিউনিটি অর্গানাইজার, স্থানীয় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীগন কর্তৃক ২জন মনোনীত জন প্রতিনিধি, স্থানীয় ভ্যান ও রিকশাচালকগন কর্তৃক মনোনীত/নির্বাচিত ১জন প্রতিনিধি, প্রযোজ্যক্ষেত্রে বাস, ট্রাক মালিক সমিতি কর্তৃক একজন মনোনীত প্রতিনিধি, ওই কমিটির সদস্য সচিব পদে স্থায়ী দোকান মালিকগন কর্তৃক ১জন প্রতিনিধি নির্বাচিত হবার বিধান রয়েছে।

সরকারি বিধি মোতাবেক দেখা যায় সভাপতি, সদস্য সচিব আর বাকী ৭ জন সদস্য থাকবেন। তবে নির্বাচিত প্রতিনিধি হবে ৩জন। বিধির বাহিরে গিয়ে হাজিরহাট বাজার পরিচালনা কমিটিতে ১৪টি পদে তৈরী করা হয়েছে তাতে সভাপতি বাদে ১৩টি পদে নির্বাচন করবে।

বাজার ব্যাবসায়ী ও ঘর মালিকরা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, সরকারি বিধিমালা উপেক্ষা করে এ নির্বাচন হচ্ছে। এ বাজারে ঘরমালিকসহ ব্যবসায়ী রয়েছে প্রায় ১হাজার। বাজার ব্যাবসায়ীদের ভোটার তালিকা অর্ন্তভ‚ক্ত করতে ৬৭৫ টাকা। অপরদিকে ঘর মালিকদের কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে ৪০০ টাকা। ভোটার হতে অতিরিক্ত টাকা হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

এ ছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে চেয়ারম্যান মো. নিজাম উদ্দিন এর মনগড়া পরিচালনা কমিটির বিষয়ে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। ওংসধরষ ঐ ইরঢ়ষড়ন নামে ফেসবুক আইডি থেকে জানাযায় ২০১৮ সালে ব্যাবসায়ীদের গনস্বাক্ষরে হাজিরহাট বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির নির্বাচন দাবী করে কমলনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি দরখাস্ত দেন। গড়যধসসধফ ঙসড়ৎ ঋধৎঁশ এর আইডি থেকে জানা যায় বাজার কমিটি বিলুপ্তি করার এখতিয়ার কার?, ১২ বছরের আয় ব্যায়ের হিসাব, সভাপতি পদে ভোট হবে কিনা, কতটি পোস্টে ভোট হবে, কে নির্বাচন কমিশন গঠন করবে, বাজার ব্যাবসয়ীদের মতামত উপেক্ষা করে একক ভাবে ও মনগড়া চেয়ারম্যান নিজে উপদেষ্ঠা হয়ে নির্বাচন কমিশন গঠন করা সঠিক কি না?

হাজিরহাট বাজার ব্যাবসায়ী মো. ইসমাইল হোসেন ও মোহাম্মদ ফারুক বলেন, সবাই নির্বাচন চায়। তবে তা সরকারি বিধি মোতাবেক হতে হবে। আর যদি ব্যাবসায়ীদের সাথে যোগাযোগ করে পরিচালনা কমিটি হয় তাহলে সভাপতিসহ সকল পদে নির্বাচন দিতে হবে।

বাজার কমিটির নির্বাচিত সদস্য সাহাব উদ্দিন রনি জানান, তিনি হাজিরহাট বাজার ব্যবস্থ’াপনা কমিটির নির্বাচিত সদস্য। নির্বাচিত কমিটিকে অবগত না করে মো. নিজাম উদ্দিন চেয়ারম্যান এ কমিটি বিলুপ্ত করে যা বিধি মোতাবেক হয় নি। বাজার ব্যবসায়ী ও ঘর মালিকরা সরকারি বিধি মোতাবেক নির্বাচন চায়।

নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান নির্বাচন কমিশনার মো. মিজানুর রহমান মানিক বলেন, সভাপতি পদ ছাড়া বাকী ১৪টি পদে নির্বাচন হবে।

হাজিরহাট বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটি বিলুপ্তি ও হাজিরহাট বাজার পরিচালনা কমিটির প্রধান উপদেষ্ঠা হয়ে নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ দেওয়ার বৈধ কিনা এ প্রশ্নের জবাবে হাজিরহাট বাজার পরিচালনা কমিটির প্রধান উপদেষ্ঠা দাবী করে চেয়ারম্যান মো. নিজাম উদ্দিন বলেন তাহলে আমি ছাড়া করবে কে? এগুলো জবাব দিহিতার কোন বিষয় না। তিনি আরও বলেন এত প্রশ্ন করেন কেন? আমি এসে আপনাকে সাক্ষাতে বলবো।

উপজেলা হাট বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান বলেন, হাট বাজার দৈনন্দিন পরিচালনা, উন্নয়ন ও রক্ষণাবেক্ষন, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা একটি অবাধ ও গ্রহনযোগ্য বাজার ব্যবস্থাপনা করার জন্য সরকারি বিধি মোতাবেক নির্বাচন হবে। এ বিষয়ে আমি আলোচনা করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করবো।

আরও পড়ুন

Friday, September 23, 2022

সর্বশেষ