কমলনগরে মিথ্যা মামলা দিয়ে ভুমির প্রকৃত মালিককে হয়রানীর অভিযোগ ।

কমলনগর, লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার ২নং সাহেবেরহাট ইউনিয়নে জেগে উঠা চরকে কেন্দ্র করে ভুমির প্রকৃত মালিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে ।
০২ (জানুয়ারী)২০২২ ইং রোজ রবিবার উক্ত চরের প্রকৃত মালিকগন এই অভিযোগ করেন। ঐতিহ্যবাহী মাতাব্বর পরিবারের মৃত কাইমুদ্দিন মাতাব্বরের দুই ছেলে নোয়াব আলী মাতাব্বর ও হামিদ আলী মাতাব্বর নামে খতিয়ান ভুক্ত প্রায় ৪৫০০ একর দখলীও ভূমি গত ১০(দশ) বছর পুর্বে বসত ভিটা এবং চাষের জমি সহ মেঘনার করাল ঘ্রাসে বিলিন হয়ে যায় । বর্তমানে সেই জমি জেগে উঠায় আমরা মাতাব্বর পরিবারের সকলে এলাকাবাসীকে নিয়ে আমাদের বসত ভিটা এবং চাষের জমিতে কিছু দিন পুর্বে ৫০ মন খেসারী এবং ২৮ কেজি সরিসা রোপন করি ।

কিন্তু কিছুদিন আগে চর ফলকন এলাকার আনার মিয়াসহ তার লোকজন নিয়ে আমাদের জমিতে একটি ঘর উঠায় এবং তার মহিষ, ভেড়া ও ছাগল দিয়ে আমাদের সকল ফসল নষ্ট করে। আমরা এলাকাবাসী এর প্রতিবাদ করলে আনার ফাজাল আমাদেরকে জমি থেকে উচ্ছেদের হুমকি দেয় এবং মোটা অংকে চাঁদা দাবিসহ আমাদের হয়রানি করার জন্য আনার পাজাল চর ফলকন গ্রামের ইকবাল হোসেন নামের এক ব্যক্তিকে দিয়ে মফিজ মাতাব্বরসহ মোট ০৮ জন কে বিবাদী করে লক্ষ্মীপুর কোর্টে একটি চাদাবাজির মামলা করেন। যার মামলা নং- ৬৫০/২০২১ ইং লক্ষ্মীপুর।

এসব মিথ্যা মামলা থেকে মুক্তি সহ তাদের এই হয়রানি মূলক মিথ্যা মামলার তীব্র প্রতিবাদ জানায় এবং উক্ত জমির প্রকৃত মালিক হিসেবে চর জগবন্ধু মৌজায় খাজনা নেওয়ার আইনি ব্যাবস্থা গ্রহন করতে মাতাব্বর পরিবারের পক্ষ থেকে মো: মফিজ মাতাব্বর মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয়ের প্রতি জোর দাবি জানান।

পাশাপাশি আইনি সহয়তা পেতে মাতাব্বর পরিবারের পক্ষ থেকে মোঃ জসিম উদ্দিন বাদী হয়ে আনার পাজালসহ মোট ১৪ জন কে বিবাদী করে কমলনগর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন যার মামরা নং-৬৪৪/২০২১ ইং।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আনার ফাজাল বলেন, আমরা কারো জমি (মাতাব্বর চর) দখল করতে যাইনি। নতুন চর উঠেছে তাই আমরা সেখানে মহিষ পালন করি,তার জন্য একটি অস্থায়ী ঘর নির্মান করেছি। জমিগুলো মাতাব্বর পরিবারের সেটা আমরা জানি। তবে ইকবালের এর বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয় নি।

এবিষয়ে জানতে চাইলে কমলনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মোসলেহ উদ্দিন বলেন, দুই পক্ষের লক্ষ্মীপুর জর্জ কোর্টে মামলা হয়েছে।
মামলা দুইটিই তদন্ত অবস্থায় আছে, তদন্ত শেষে কোর্টে প্রতিবেদন পাঠানো হবে।

আরও পড়ুন

Friday, October 7, 2022

সর্বশেষ