রামগঞ্জে যেভাবে দাফন হলো বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটে নিহত বিল্লালের লাশ

মোঃ আরিফ হোসেন
লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটে বিল্লাল হোসেন (৫৫) নামের এক নির্মান শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ১৭ জানুয়ারী সোমবার রাতে রামগঞ্জ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন পারুল বেগমের ভবনে। নিহত বিল্লাল উপজেলার ৩নং ভাদুর ইউনিয়নের পশ্চিম ভাদুর কাজী বাড়ির মৃত কালা মিয়ার ছেলে। দীর্ঘ ১৭ বছর থেকে বিল্লাল মেসার্স আলমগীর কনস্টাকশন প্রোপ্রাইটর আলমগীরের তত্ত্বাবধানে প্রতিদিন ৪৫০টাকা হাজিরায় দিনমুজুরের কাজ করতো। সংবাদ পেয়ে রামগঞ্জ থানা পুলিশের এসআই আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের ন্যায় বিল্লাল হোসেন পারুল বেগমের নির্মাধীন ভবনে ঠিকাদার আলমগীরের নির্দেশে কাজ করতে যায়। একপর্যায়ে বিদ্যুতের মিটার থেকে অবৈধ সংযোগ নিয়ে পানির মোটার্রের সাথে সংযোগের সময় শর্টসার্কিট হলে বিল্লালের চোখ ও কপাল পুড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পরে ঠিকাদার আলমগীরের লোকজন উদ্ধার করে সোমবার সন্ধা ৬.৫০ মিনিটের সময় রামগঞ্জ সরকারী হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার শারমিন ইসলাম মিতু বিল্লালকে মৃত ঘোষনা করে। পরে ঠিকাদার আলমগীরের লোকজন তড়িঘড়ি করে রাতেই বিল্লালের লাশ ভাদুর কাজী বাড়িতে নিয়ে দাফন কাজ শেষ করেন।
রামগঞ্জ সরকারী হাসপাতালের আরএমও ডাঃ রৌশন জামিল জানান, হাসপাতালে আসার অনেক আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিশ্চুক বিল্লালের এক আত্নীয় জানান, ঠিকাদার আলমগীরের সাথে কথাবার্তার সমযোতা শেষেই লাশ দাফন করা হয়েছে। এর বেশী কিছু বলা যাবে না।
ভবন নির্মান ঠিকাদার আলমগীর হোসেন জানান, বিল্লাল বেশ কয়েকদিন থেকে শাররীকভাবে অসুস্থ ছিলো। ঘটনার দিন হার্ট দুর্বল হয়ে হয়তো সে মারা যেতে পারে।
রামগঞ্জ উপজেলা পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম মোঃ নুরল আলম ভূঁইয়া জানান, শুনেছি পানির মোর্টারে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে গিয়ে একজন লোক মারা গেছে। পরে ঘটনাস্থলে লাইনম্যান পাঠিয়েছি। ঘটনাস্থলে কাউকে না পাওয়ায় বিস্তারিত জানা সম্বব হয়নি।
রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ এমদাদ হোসেন জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিল্লালের পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় পরিবারের লোকজনের অঙ্গীকারনামা নিহতের লাশ দাফন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

Friday, September 23, 2022

সর্বশেষ