আটঘরিয়ায় অদক্ষ চালকের হাতে নিষিদ্ধ বাহন, আতঙ্কে পথচারীরা

ইব্রাহীম খলীল, পাবনা জেলা প্রতিনিধি:পাবনার আটঘরিয়ায় রাস্তা-ঘাট গুলো যেন নিষিদ্ধ ট্রাক্টর, ভটভটির অদক্ষ ড্রাইভারের দখলে। উপজেলার সর্বত্র সড়কে এসব যানগুলো দিনরাত বেপরোয়া ভাবে দাপিয়ে চলাচলে ধুলা-বালিতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে পথচারীরা। এছাড়াও শব্দ দূষণসহ সড়ক দূর্ঘটনা প্রতি নিয়তই আতঙ্কে চলতে হচ্ছে পথচারীদের।

প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ও লাইসেন্স না থাকা অদক্ষ চালকের দ্বারা যন্ত্রদানব যানগুলোর বেপরোয়া চলাচলে একদিকে যেমন নস্ট হচ্ছে কাঁচা-পাকা সড়ক অন্যদিকে প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। নষ্ট হচ্ছে গ্রামীণ এলাকার ব্রীজ ও কালভার্ট। অবৈধ এ যানগুলোর প্রতি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজর নেই বললেই চলে!

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার ১টি পৌরসভা সহ ৫টি ইউনিয়নের পাড়া- মহল্লা ও গ্রামীণ এলাকা সংযুক্ত সড়ক গুলোতেও দিন-রাত চষে বেড়াচ্ছে বালু, মাটি বোঝাই করে অবৈধ ট্রাক্টর ও ভটভটি।

বিকট শব্দে সাদা পাউডারের মত ধুলা উড়িয়ে ট্রাক্টরগুলো দাপিয়ে ইট, পাথর, বালু, মাটি, বাসা-বাড়ির ফার্নিচার বা গাছের গুড়ি নিয়ে ছুটছে আনাচে কানাচে। ট্রাক্টর ও ভটভটি বেপরোয়া চলাচলে রাস্তা-ঘাট ভেঙে যেন ধুলার চর পড়েছে। পথচারীরা প্রতি নিয়তই বিভিন্ন দূর্ঘটনার স্বীকার হচ্ছে।

আবার বিভিন্ন জায়গায় ব্রীজ ও কালভার্টেও ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। অন্যদিকে কৃষি জমির উর্বর টপ সয়েল কেটে ইট ভাটায় সরবরাহ করায় উর্বর জমি নষ্ট হয়ে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে।

পথচারীরা জানান- প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা বিহীন অদক্ষ চালকেরা বালু, মাটি নিয়ে যন্ত্রদানব যানগুলো চলাচলে বিকট শব্দে দিন রাত পথচারীদের আতংকিত হওয়ার পাশাপাশি রাস্তাঘাট ধুলোয় কুয়াশার মতো অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে থাকে। অন্ধকারাচ্ছন্ন ধূলোর মধ্যে দিয়েই ছোট ছেলে-মেয়ে নিয়ে আমাদের যাতায়াত হিমশিম খেতে হয়।

সূত্র জানায়- শুধুমাত্র চাষাবাদের জন্য এসব যন্ত্রদানব আমদানি করা হলেও এখন অবৈধভাবে পণ্য পরিবহন কাজে এগুলো ব্যবহার করা হচ্ছে। এসব যানবাহনে নেই কোন রুট পারমিট । তাছাড়া ড্রাইভিং লাইসেন্সের তাগিদ না থাকায় ১৫-১৬ বছরের অপ্রাপ্ত বয়সের শিশু-কিশোর এসব যানবাহন চলাচলের কাজে নিয়োজিত রয়েছে ।

ফলে অবাধে চলাচলের সুযোগ পাওয়ায় প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট-বড় দূর্ঘটনা। ধুলোমূক্ত নির্বিঘ্ন চলাচলে প্রশাসন সহযোগীতা কামনা করেন পথচারীরা।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুল্লাহ আল আজিজ জানান, শিশু সহ সব বয়সের মানুষ এসব সৃষ্ট ধূলায় সর্দি কাশি ও শ্বাসকষ্ট সহ নানা রোগ আক্রান্ত হচ্ছে।

এ ব্যাপারে আটঘরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাকসুদা আক্তার মাসু জানান- এসব অবৈধ ট্রাক্টর ও ভটভটি চলাচলের বিষয়ে দ্রুতই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

আরও পড়ুন

Friday, September 23, 2022

সর্বশেষ