গুলিবিদ্ধ ভোলা ছাত্রদল সভাপতি নুরে আলমের মৃত্যু

চীফ রিপোর্টার॥ ভোলায় পুলিশের সঙ্গে বিএনিপর নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় গুলিবিদ্ধ জেলা ছাত্রদল সভাপতি নুরে আলম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি—–রাজিউন)। বুধবার বেলা ৩টা ১০ মিনিটে রাজধানীর গ্রিন রোডের কমফোর্ট হাসপাতালে মারা যান তিনি। কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল ও ভোলা জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ নিয়ে ভোলায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় ২ জনের মৃত্যু হলো। আলম ভোলা সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের চরনোয়াবাদ এলাকার বাসিন্দা।
টানা তিন দিন চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় থেকে আজ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন নুরে আলম এমনটাই জানা গেছে পারিবারিক ও দলীয় সূত্রে। আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) তার কফিন ভোলা এনে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে বলে জানান।
জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব গোলাম নবী আলমগীরসহ নেতৃবৃন্দরা শোক প্রকাশ করে তার আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। পাশাপাশি বিএনপি নেতৃবৃন্দ, পুলিশ নির্বিচারে শান্তিপূর্ণ মিছিলে অতর্কিত হামলা ও গুলি করে শতাধিক নেতা-কর্মীদেরকে আহত করায় দোষী পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান এবং ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান।
উল্লেখ্য, গত রোববার বেলা ১১টার দিকে ভোলায় জেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে দলীয় বিক্ষোভ কর্মসূচির শুরুতে পুলিশ বাঁধা দিলে সংঘর্ষ শুরু হয় এবং এতে স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মী আ: রহিম মারা যান এবং অন্তত শতাধিক লোক আহত হয়। আব্দুর রহিম সদর উপজেলার দক্ষিণ দিঘলদী ইউর্নিয়নের কোড়ালিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

আরও পড়ুন

Thursday, October 6, 2022

সর্বশেষ