জোয়ারের পানিতে ভোলার প্লাবিত নিম্মাঞ্চল ॥ তলিয়ে গেছে ফেরিঘাটের গ্যাংওয়ে

চীফ রিপোর্টার ॥ ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুরের রামদাসপুর, ভেদুরিয়া চটকিমারা, ভেলুমিয়ার গাজীরচর, কাচিয়ার মাঝেরচর, দৌলতখানের মদনপুরসহ বেশ কয়েকটি গ্রাম জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয় এসব নিম্নাঞ্চল এলাকা। এতে ভোগান্তিতে পড়ছে নিম্নাঞ্চলের মানুষ। অনেক এলাকায় বাসা বাড়ীতে পানি উঠায় গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগি নিয়ে উঁচু জায়গায় স্থান নিয়েছে যদিও জোয়ারের পানি বেশি সময় দীর্ঘ না হওয়ায় কোন ক্ষতি সাধন হয়নি। জোয়ারের পানিতে ইলিশার সোনাডগী এলাকায় একটি নৌকা ডুবে গিয়েছে বলে জানা গেছে। অন্যদিকে মনপুরা, দক্ষিণ আইচা এলাকায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে বলে জানা গেছে।
অপরদিকে ভোলার ব্যস্ত ইলিশা ফেরিঘাটের পন্টুনের গ্যাংওয়ে জোয়ারের পানিতে ডুবে যায়। ফলে গাড়ি ওঠানামা ব্যাহত হয়। তাছাড়া ঘাটের সংযোগ সড়ক ভাঙনের মুখে পড়েছে। দেখা গেছে মেঘনা নদীর তীরের ইলিশা ফেরিঘাটের গ্যাংওয়ের অর্ধেকের বেশি ডুবে আছে। এ সময় কনক চাঁপা নামের ফেরিটি লক্ষ্মীপুরের মজুচৌধুরীর হাট ফেরিঘাট থেকে গাড়ি বোঝাই করে এসে ইলিশা ফেরিঘাটে থেমে থাকে। অপরদিকে আরেকটি ফেরি গাড়ী লোড দিতে পারেনি পানির কারনে গাড়ি নামতে-উঠতে পারছিল না। ফেরিঘাটের পন্টুন অনেক উঁচুতে থাকায় গ্যাংওয়ে খাড়া হয়ে আছে। লোকজন নৌকায় করে ফেরি থেকে নামেন। এ ছাড়া গ্যাংওয়ের শেষ মাথা থেকে পাকা সড়ক পর্যন্ত ১০০ মিটার সংযোগ সড়কটি ভাঙ্গা।
গাড়ির চালকেরা বলেন, ঘাটটি দ্রুত সংস্কার করা দরকার। তা না হলে এ ভাবে গাড়ী উঠানামা করতে পারে না। নুরে আলম নামের একজন ট্রাকচালক বলেন, ঘাট থেকে প্রচুর আয় হলেও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) কিংবা পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) ঘাটের যতœ নিচ্ছে না। ঘাটটি নিয়মিত সংস্কার করছে না।
নুরুল ইসলাম নামে এক ড্রাইভার বলেন, এই ঘাটটি আলোচিত ঘাট হলেও সংস্কারের উদ্যােগ নাই।
ভোলার ইলিশা ফেরিঘাটের সহকারী পরিচালক মোঃ পারভেজ খান বলেন, অতিরিক্ত জোয়ারের কারনে এমনটা হয়েছে তবে এটা সংস্কারের কাজ বিআইডব্লিউটিএ এর দায়িত্ব।
ভোলা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলাম জানান, আমরা খোজ নিচ্ছি, তবে জোয়ারের পানিগুলো বেশি সময় থাকে না বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন

Friday, October 7, 2022

সর্বশেষ