রামগতিতে প্রধান শিক্ষকের বেপরোয়া অনিয়ম দুর্নীতি

রামগতি (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরে রামগতির রঘুনাথপুর পল্লি মঙ্গল সরকারী
প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুবীর চন্দ্র দে ও তার স্ত্রী একই স্কুলের সহকারী শিক্ষক লিপি রানী দের বিরুদ্ধে সহকর্মীদের সাথে অসদাচরণ, খামখেয়ালীপনা, ফান্ডের টাকা তছরুপ, ডিজিটাল যন্ত্রপাতি শিক্ষার্থীদের ব্যবহার করতে না দিয়ে আলমারিতে বাক্সবন্দী করে রাখা, ভাউচার সর্বস্ব উন্নয়ন কাজ, শিশু শিক্ষার্থী ও নারী সহকর্মীদের সাথে অশ্লীল আচরণ, যৌন হয়রানী, শ্লীলতাহানীর অভিযোগ উঠেছে।
সম্প্রতি তার এ সকল সরকারী অর্থ আত্তসাৎ, অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে অসদাচরণ, যৌন হয়রানী এবং শ্লীলতাহানীর বিরুদ্ধে একই বিদ্যালয়ের কয়েকজন নারী সহকারী শিক্ষক উপজেলা
শিক্ষা দপ্তর সহ শিক্ষা কমিটির সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত
অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগে উল্লেখ করেন, প্রধান শিক্ষক ও তার স্ত্রী সহকর্মীদের সাথে কথায় কথায় রুঢ় ও অসদাচরণ করে। স্কুলের উন্নয়ন কাজে কাউকে পাত্তা না দিয়ে একক সিদ্ধান্ত গ্রহন, যে কোন ধরনের অর্থ ব্যয়ে অস্বচ্ছতা, শিশু শিক্ষার্থী ও নারী সহকর্মীদের সাথে অশ্লীল আচরণ, যৌন হয়রানী, শ্লীলতাহানী, ধর্ষনের উদ্দেশ্যে
নারী সহকর্মীদের কাপড় ধরে টানাটানি করা। এ নিয়ে তারা শিক্ষা দপ্তরে অভিযোগ দিয়ে কোন প্রতিকার পায়নি। এছাড়া সরকারী অর্থের দৃশ্যমান কোন উন্নয়ন না করে শুধু ভাউচার দিয়ে দায় সারেন বলে অভিযোগে উল্লেখ
করে।

জানা যায়, উপজেলা চেয়ারম্যান ও শিক্ষা কমিটির সভাপতি শরাফ উদ্দিন আজাদ
সোহেল স্কুল ভিজিটে গেলে এ সকল অনিয়ম, দুর্নীতি, সরকারী অর্থ তছরুপ দেখে তিনি স্কুল রেজুলেশন খাতায় তা উল্লেখ করেন। ভূক্তভোগীদের দায়ের করা অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য লিখেন সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তাকে।

এ দিকে প্রধান শিক্ষক ও তার স্ত্রীর এসকল অনিয়ম দুর্নীতির বিষয়ে তদন্ত করে শিক্ষা কমিটির নিকট প্রতিবেদন দাখিল করার কথা থাকলেও তা দ্বীর্ঘসূত্রিতা করার অভিযোগ উঠছে ক্লাষ্টারের দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা হরিদাস সরকারের বিরুদ্ধে।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক বলেন, আমি কোন অনিয়ম দুর্নীতি করিনি এ সব আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।

উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুল আজিজ জানান, আমরা এস এম সির সভাপতি ও সহকারি শিক্ষকদের দুটি অভিযোগ পেয়ে যথারীতি তদন্ত করছি। অল্প সময়ের মধ্যে রিপোর্ট পেশ করা হবে।

উপজেলা চেয়ারম্যান শরাফ উদ্দিন আজাদ সোহেল জানান, স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে দৃশ্যমান কোন উন্নয়ন কাজ দেখিনি। প্রধান শিক্ষককে স্কুলে পাইনি এমনকি স্কুলের উন্নয়ন কাজের বিষয়ে সহকারী শিক্ষকরা কিছুই জানেনা বলে তারা জানায়।

আরও পড়ুন

Friday, October 7, 2022

সর্বশেষ