লক্ষ্মীপুরে ইলেকট্রিশিয়ানকে পিটালেন পাউবো আনসার সদস্যরা

মোঃ আরিফ হোসেন,লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) গেটে দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা মো. পারভেজ (২৭) নামে এক যুবককে পিটিয়ে আহত করেছে। মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২ টার দিকে গেট দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করলে তাকে পেটানো হয়। পরে পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুই কর্মকর্তা আনসার সদস্যদের বিচার না করে উল্টো আহতের কাছ থেকে সাদা কাগজে সই নেয়। দুপুর দেড়টার দিকে ওই যুবককে সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়। স্থানীয়দের ধারণ করা লাঠি পেটার একটি ভিডিও প্রতিবেদকের কাছে এসেছে।

আহত পারভেজ লক্ষ্মীপুর পৌরসভার সমসেরাবাদ গ্রামের আলী মুদ্দিন বেপারী বাড়ির মৃত নুর নবীর ছেলে। তিনি পেশায় একজন ইলেক্ট্রিশিয়ান।

পারভেজ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে একটি বিড়াল নখ দিয়ে পারভেজের শরীরের আঁচড়ায়। এতে পারভেজ সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আসে। নতুন গেট নির্মাণের কারণে সেখানে চলাচল বন্ধ রয়েছে। পাশ্ববর্তী পাউবো গেটের ভেতর দিয়ে নিরাপত্তা দেওয়াল ফাঁকা জায়গা দিয়ে তিনি কয়েকজনকে হাসপাতাল যেতে দেখেন। এতে তিনি নিজেও যেতে চায়। কিন্তু পাউবোর কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী দায়িত্বরত আনসার সদস্য একে আজাদ তাকে ঢুকতে দিচ্ছিল না। এতে আনসার সদস্য ও পারভেজ তর্কে জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে আনসার সদস্য ও পাশ্ববর্তী এক দোকানদার ফিরোজ তাকে জোর করে গেটের ভেতর ঢুকিয়ে দেয়। পরে হাতের লাঠি দিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি কয়েকটি আঘাত করে। এসময় অন্য দুই আনসার সদস্য পিসি আরিফুল ইসলাম এবং আবদুর রহমান এসে তাকে লাঠি পেটা করে। আত্মরক্ষার্থে ফারভেজ আনসার সদস্যদের হাত থেকে জানে বাঁচতে এক আনসার সদস্যের হাত থেকে লাঠি কেড়ে নেয়। তবে সে কাউকে আঘাত করেনি।

এ ঘটনায় ওই যুবকসহ আনসার সদস্যদের নিয়ে কার্যালয়ের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আতিকুর রহমান ও এম এম জাহাঙ্গীর তাৎক্ষণিক একটি বৈঠকে বসে। পরে বৈঠকে পারভেজের কাছ থেকে সাদা কাগজে সই নিলেও আনসার সদস্যদের কোন কিছু বলেননি তারা। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তারা কোন উত্তর দেয়নি। বৈঠকে ৫ জন সংবাদকর্মীও উপস্থিত ছিলেন।

মো. পারভেজ বলেন, পাউবোর গেট অতিক্রম করে কয়েকজনকে হাসপাতাল যেতে দেখেছি। এতে আমিও যাওয়ার চেষ্টা করি। আনসার সদস্যরা আমাকে বাধা দেয়। কিন্তু আমি ঢুকেনি। আনসার সদস্য ও এক দোকানদার আমাকে গেটের ভেতর জোর করে ঢুকিয়েছে। পরে তারা আমাকে লাঠি দিয়ে ১০-১২টি আঘাত করেছে। লাঠির আঘাতে আমার পায়ের নখ ফেটে গেছে।

জেলা আনসার-ভিডিপির কমান্ডার উজ্জ্বল পাল বলেন, পাউবোর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হাসপাতালে যাওয়ার জন্য তাদের কার্যালয়ের এলাকার ভেতর দিয়ে প্রবেশ নিষেধ। যুবককে নিষেধ করা সত্ত্বেও সদর হাসপাতালে যাওয়ার জন্য পাউবো এলাকায় প্রবেশ করে। এতে বাধ্য হয়ে আনসার সদস্যরা তার গায়ে হাত তুলেছে। এ ব্যাপারে আনসার সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ওই যুবকও অন্যায় করেছে।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী ফারুক আহমেদ বলেন, বিষয়টি কেউ আমাকে জানায়নি। আনসারদের দোষ থাকলে তাদের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে। আমার কর্মকর্তারা কেন সাদা কাগজে সই নিয়েছে, তা বিস্তারিত জানতে তাদের সঙ্গে কথা বলা হবে।

লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক আনোয়ার হোছাইন আকন্দ সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হবে।

আরও পড়ুন

Friday, October 7, 2022

সর্বশেষ