চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান এর আলোয় আলোকিত। ঝুনাগাছচাপানী ইউনিয়ন পরিষদ। 

নীলফামারী প্রতিনিধি  : নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছচাপানী ইউপির চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান এর আলোয় আলোকিত প্রতিটি গ্রাম।তার উন্নয়নের কথা কিছুটা গল্পের ছোঁয়ার মত। আর এ উন্নয়নের আলোর ছোয়া লেগেছে প্রতিটি ওর্য়াডে।আমিনুর রহমান এক জন সৎ ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ। যিনি রাজনৈতিক আদর্শকে ধারণ করে সমাজের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করে আসছেন। এছাড়া যিনি সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, জুয়া,বাল্যবিবাহও মাদক নির্মূলে ব্যাপক ভূমিকা রাখছেন।আমিনুর রহমান চেয়ারম্যান ২০১৬ সালের ২৩শে এপ্রিল ঝুনাগাছচাপানী ইউপি নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হন। চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান তার ক্ষমতার ৫ বছর অতিক্রম হওয়ার মধ্যে দিয়ে ইউপি বাসীকে ইতিমধ্যে তার ক্ষমতার মাধুর্যতা দেখিয়েছেন, পাশাপাশি ইউনিয়নের একজন চেয়ারম্যান হিসাবে যথেষ্ট সুনাম অর্জন করছেন। ঝুনাগাছচাপানী ইউপির সর্বস্তরের জনগণের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তিনি তার আগামীর পরিকল্পনা দিয়ে ভরিয়ে দিতে চান গোটা সমাজ ব্যবস্তাকে।
নির্বাচিত হয়েই তিনি এলাকার অবহেলিত মানুষের জীবন মান উন্নয়নের কথা চিন্তা করে সকল ধরনের সহযোগীতা করে যাচ্ছেন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, এতিমখানা, মন্দির, পথশিশু,ছিন্নমূল সহ হতদরিদ্র মানুষদেরকে। রাস্তাঘাটের উন্নয়ন, চলাচলের জন্য নির্মাণ, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, ড্রেনেজ নির্মাণসহ অনেকগুলো কাজ করেছেন।
সরেজমিনে চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান এর নির্বাচনী এলাকা ঘুরে দেখা যায় বিগত বছরের চেয়ে বর্তমান চেয়ারম্যানের অধীনে উন্নয়নের ছোয়া লেগেছে অনেক তথা তার এলাকার প্রত্যান্ত অঞ্চলের অবহেলিত অনেক এলাকার মানুষ বর্ষার মৌসুমে জনসাধারনের দূর্ভোগের কোন শেষ ছিলোনা ঠিক তখনই আমিনুর রহমান চেয়ারম্যান এর উন্নয়নের কিছুটা লেগেছে হাতছানি।আমিনুর রহমান এর অবদান বেশ কয়েকটি প্রাইমারি স্কুলের হতদরিদ্র ছাত্র ছাত্রীদের জন্য ড্রেস দিয়েছেন। বেশ কয়টি ইস্কুলে মাটি বড়াট করে দিয়েছেন।এবং উচ্চ বিদ্যালয়ের মেয়েদের জন্য গার্লস ফ্যাসিলিটিস রুম তৈরি করেছেন।বর্তমান সময় রাস্তা ঘাট,যোগাযোগ ব্যবস্তা আগের চেয়ে অনেক গুণ বেশি কাজ হয়েছে। বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃআমিনুর রহমান চলাচলের সুবিধার্থে বিভিন্ন রাস্তায় ব্রিজ কালর্ভাট তৈরি করে দিয়েছেন আর এতে করে হাজার ও মানুষের যোগাযোগ ব্যাবস্তা হয়েছে খুব সহজ।আমিনুর রহমান যাদের জমি আছে ঘর নাই তাদের অধিকাংশকে ঘর তৈরি করে দিয়েছেন। বেশ কয়েকটি গ্রামের মানুষের বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হওয়ার দু’চোখে শুধু স্বপ্ন ছিলো মিলছিল না কারু কাছ থেকে বিদ্যুৎ পাওয়ার আশা।গ্রাম গুলোতে বিদ্যুৎ না থাকায় বাচ্ছারা ছিলো পড়া লেখায় পিছিয়ে এছাড়া ও বিদ্যুৎ না থাকায় তাদের ভোগান্তির কোনো শেষ ছিলো না আজ সেই গ্রামের মানুষ গুলোকে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত করে তাদের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে দিয়েছেন এবং শতভাগ বিদ্যুতায়ন হয়েছে চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান এর হাতে।আমিনুর রহমান নির্বাচিত হওয়ার এখন পযর্ন্ত এলাকায় বড় কোনো ধরনের জটিলতা দেখা যায়নি।ইউনিয়নে শতভাগ, বিধবা,বয়স্ক,প্রতিবন্ধি ভাতা নিশ্চিত করন।আর এ সফল মানুষকেই আবারো চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চান ঝুনাগাছচাপানী ইউপির ওয়ার্ডবাসী। ৭নং ওয়ার্ডের সফিয়ার, রহিম,মিলন ৬নং ওয়ার্ড মেতালের, বিলাস চন্দ্র,বিপুল চন্দ্র ৪নং ওয়ার্ডের মহিদুল,সাপিন,হালিমুর সহ একাধিক তরুণ জানান, আমিনুর রহমান চেয়ারম্যান হয়ে এলাকার তরুণ ও যুব সমাজের জন্য অনেক কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি এলাকায় যুব সমাজ মাদকের নেশায় আসক্ত না হয়, সেই জন্য মাদক নির্মূলসহ অনেকগুলো উন্নয়নের কাজ করেছেন। তিনি আমাদের যুব সমাজকে নিয়ে নতুন কিছু করার চিন্তা ভাবনা করছেন।যুব সমাজকে খেলাধুলায় আগ্র বাড়াতে তার প্রতি ব্যাপক নজড় দিয়েছেন।তারা আরো বলেন,আমিনুর রহমান একজন আদর্শবান সৎ রাজনৈতিক ব্যক্তি। যার কাছে যে কোন সমস্যা নিয়ে গেলে সমাধান করার চেষ্টা করেন। রাত-দিন যখনই যাওয়া হয় তার দরজা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকে। আমরা যুব সমাজ আমাদের মতো একজন আদর্শ মানুষকে আবারও চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চাই।
নাম প্রকাশশর্তে বেশ কয়েকজন পথচারী বলেন, এ চাপানী বাজারের ভীতরে সমস্ত চলচলের রাস্তা ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা আমিনুর রহমান সাহেব করেছেন। রাস্তাঘাটে চলাচলের সুবিধার্থে ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন, মশক নিধন ইত্যাদি কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। যা বর্তমানের মানুষ এর সুবিধা ভোগ করছে। আমি চাই আমিনুর রহমান সাহেব আবারও নির্বাচিত হউক। তিনি নির্বাচিত হলে এলাকায় আরো ও অনেক বেশি উন্নতি হবে।আমাদের বয়সে যত চেয়ারম্যান দেখলাম তার মত উন্নয়ন কারী কাউকে দেখলাম না।এমন মহান চেয়ারম্যান আরো একবার ইউনিয়নে দরকার।সরেজমিন এলাকা ঘুরে এ প্রতিবেদকের সাথে একান্ত সাক্ষাত কারে চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান বলেন, আমি ২০১৬ সালের ইউপি নির্বাচনে আমার কয়েকটি অঙ্গীকারের মধ্যে ছিল দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ,মাদক,বাল্যবিবাহ,দারিদ্রতা নির্মূল, সকল স্তরে শিক্ষার মানবৃদ্ধি ইত্যাদি। আর এ লক্ষ্য বাস্তবায়নে সমাজের একজন কর্মী হিসাবে কাজ করছি।তিনি আরো বলেন, আমি চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় নিষ্ঠার সাথে উন্নয়নের কাজ করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। কতটুকু পেরেছি সেটা এ এলাকার মানুষ ভালো জানে। আমি এবারও চেয়ারম্যান পদ প্রত্যাশী। যদি আমি নির্বাচিত হই এ এলাকার মানুষের জন্য কাজ করবো।আমি চাই আমার এলাকার মানুষের জন্য গরিব দুঃখীর জন্য কিছু করতে।আমাকে আপনাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে এলাকার উন্নয়ন করার সুযোগ দিয়েছেন। আমি আপনাদের জন্য ঝুনাগাছচাপানী ইউপি কে ডিজিটাল নগরিতে রূপান্তিত করবো। আমার ইউপিতে কোন মাদক ব্যবসায়ী, কোন চাঁদাবাজ, কোন ভূমিদস্যু থাকবে না। আমি আপনাদেরকে কথা দিয়ে ছিলাম আমি আমার কথা কতটুক রাখতে পেরেছি আপনারা ভালো জানেন ।
এলাকাবাসী বলেন আমিনুর রহমান একজন ব্যক্তি নয় তিনি একটি প্রতিষ্ঠান। তিনি আমাদের অভিভাবক এবং ঝুনাগাছচাপানী ইউনিয়ন পরিষদের যে উন্নয়ন করে যাচ্ছেন তা অামাদের ও আমাদের ছেলে মেয়েদের কাছে মডেল হয়ে থাকবে।

আরও পড়ুন

Wednesday, December 8, 2021

সর্বশেষ